রেলের সফটওয়্যার বিক্রি করার অভিযোগে গ্রেপ্তার দালাল সংস্থার মূল পান্ডা চন্দ্রনাথ গুপ্তা

5
রেলের সফটওয়্যার বিক্রি করার অভিযোগে গ্রেপ্তার দালাল সংস্থার মূল পান্ডা চন্দ্রনাথ গুপ্তা

সম্প্রতি, বেশ কিছু দালাল সংস্থার বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছিল, তারা রেলের সফটওয়্যার বিক্রি করছে। এর ফলে সাধারণ মূল্যের থেকে অধিক মূল্যে দালালদের কাছ থেকে তৎকাল টিকিট কিনতে বাধ্য হচ্ছিলেন যাত্রীরা। বিগত বেশ কয়েক বছর ধরেই দালালদের এই রমরমা ব্যবসা চলছে। যাত্রীদের কাছ থেকে অভিযোগ পেয়ে, তদন্তে নামে পুলিশ। অবশেষে, রবিবার রাতে ঘটনার সঙ্গে জড়িত মূল চক্রির খোঁজ পেয়েছে পুলিশ।

রবিবার রাতে কলকাতার বড়তলা থানা এলাকা থেকে দালাল সংস্থার মূল পান্ডা চন্দ্রনাথ গুপ্তা নামে এক ব্যক্তিকে রেলের সফটওয়্যার বিক্রি করার অভিযোগে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। পূর্ব রেলের আরপিএফ সূত্রে খবর, ওই ব্যক্তি একটি তথ্যপ্রযুক্তি সংস্থার সিইও। ডিজিটাল দুনিয়ায় রেলের ৮০ শতাংশ টিকিটই এখন অনলাইনে বুক করা যায়। যাত্রীদের এই পরিষেবা দিতে, বিভিন্ন কর্পোরেট সংস্থা কে নিয়োগ করে আইআরসিটিসি। এই পরিষেবার সাথে রেলের সরাসরি যোগাযোগ না থাকায়, তার যথেচ্ছ সুবিধা নেয় সংস্থাগুলি।

এই কর্পোরেট দালাল সংস্থাগুলি অনলাইন রিজার্ভেশন টিকিট গুলিকে নিমেষের মধ্যে তাদের সফট্ওয়ার ক্যাটাগরিতে অন্তর্ভুক্ত করে নেয়। ফলে যাত্রীরা সরাসরি তৎকাল টিকিট কাটতে পারেন না। বাধ্য হয়েই দালাল সংস্থার শরণাপন্ন হতে হয় তাদের। দালাল সংস্থাগুলি টিকিটের দাম সাধারন মূল্যের তুলনায় অনেক বেশি ধার্য করে রাখে। উপায়ন্তর না থাকাই বাধ্য হয়েই দালালদের নির্ধারিত মূল্যের বিনিময়েই টিকিট কিনতে বাধ্য হন যাত্রীরা।

এই চক্রকে নিষ্ক্রিয় করতে জগদ্দল, বনগাঁ, রানাঘাট, বেলতলা বিভিন্ন জায়গা থেকে একের পর এক দালাল ও এজেন্সি মালিকদের জিজ্ঞাসাবাদ করতে থাকে পুলিশ। রেলের টিকিট নিয়ে দালালি করার অভিযোগে আট এজেন্ট এবং দালালকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এর পরেই চন্দ্রনাথের হদিস পায় পুলিশ। পুলিশ সূত্রে খবর, শিয়ালদহ আরপিএফ এর ক্রাইম ইন্টেলিজেন্স বিভাগ, ব্যারাকপুর আরপিএফ, কৃষ্ণনগর আরপিএফ যৌথভাবে তদন্ত করে তেহট্ট এবং বেলঘড়িয়া থেকে সফটওয়্যার বিক্রির সঙ্গে জড়িত বেশ কয়েকজনকে গ্রেফতার করেছে।