চন্দনা বাউরির মিল খুঁজে পাওয়া গেল উত্তরপ্রদেশে! সাফাই কর্মীর স্ত্রী হলেন ব্লক প্রধান

8
চন্দনা বাউরির মিল খুঁজে পাওয়া গেল উত্তরপ্রদেশে! সাফাই কর্মীর স্ত্রী হলেন ব্লক প্রধান

বাংলার বিজেপি বিধায়ক চন্দনা বাউরিকে কে না চেনেন? একুশের বিধানসভা নির্বাচনে বাংলার সবথেকে নিম্নবিত্ত প্রার্থী ছিলেন তিনি। দুচোখে শালতোড়া বিধানসভা এলাকার উন্নয়নের স্বপ্ন বুনে চন্দনা বিধানসভার উদ্দেশ্যে পা বাড়িয়েছিলেন। তাকে বিশ্বাস করেছেন তার এলাকার মানুষেরা। সাফল্য ধরা দিয়েছে তাকে। উত্তরপ্রদেশের সাহারানপুরের বালিয়াখোড়ার ব্লক প্রধান সোনিয়ার সঙ্গে যেন চন্দনার অনেকখানি মিল খুঁজে পাওয়া যায়।

সম্প্রতি উত্তরপ্রদেশের ওই বিভাগের প্রধান হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন এলাকারই সাফাই কর্মী সুনীল কুমারের স্ত্রী সোনিয়া। নালহেদা গুর্জার গ্রামের বাসিন্দা সুনীল কুমার কর্মসূত্রে সাফাই কর্মী। তার স্ত্রী সোনিয়া বিএ পাস করেছেন। ত্রি-স্তর পঞ্চায়েত নির্বাচনে বিডিসি আসনটি তফসিলি জাতির জন্য সংরক্ষিত হওয়ায় ওই আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছিলেন সোনিয়া। এলাকার বাসিন্দাদের নির্বাচনে তিনি জয়ী হয়েছেন।

বিজেপি নেতা তথা জেলা পঞ্চায়েত সদস্য মুকেশ চৌধুরী শিক্ষিত সোনিয়াকে বিজেপির তরফ থেকে প্রধান পদের প্রার্থী হিসেবে দাঁড় করিয়েছিলেন। ২৬ বছর বয়সী সোনিয়া বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ব্লক প্রধান নির্বাচিত হয়েছেন। নিজের এই সাফল্য স্বামী এবং পরিবারের সঙ্গে ভাগ করে নিয়েছেন তিনি। সোনিয়া নির্বাচনে জয়লাভ করলেও তার স্বামী অবশ্য চাকরি ছাড়বেন না বলেই জানা গিয়েছে। আসলে স্বামীর উপার্জনেই সংসার চলে। তাই সুশীল চাকরি ছাড়বেন না বলে জানিয়ে দিয়েছেন।

সোনিয়ার এই সাফল্য এক নিমিষেই শালতোড়া বিধানসভা কেন্দ্রের বিধায়ক চন্দনা বাউরির কথা মনে করিয়ে দেয়। একুশের বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপির প্রার্থী তালিকার সবথেকে দরিদ্র প্রার্থী ছিলেন চন্দনা। চরম অর্থকষ্টে মধ্যে থেকে আর যখন তিনি কিছুটা সুদিনের মুখ দেখেছেন, তখনো সাধারণ মানুষের উন্নয়নের কথা ভাবছেন চন্দনা।