ট্রেনে কোনরকম দাহ্য পদার্থ বহন করলে তা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধের আওতায় ধরা হবেঃ ভারতীয় রেল

6
ট্রেনে কোনরকম দাহ্য পদার্থ বহন করলে তা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধের আওতায় ধরা হবেঃ ভারতীয় রেল

ট্রেনে বাসে ভিড় বাড়লে সংক্রমণের আশঙ্কা বেড়ে যাবে। সেই দিক মাথায় রেখে এবার উৎসবের মরসুমে যাত্রীদের নিরাপত্তার কথা বিবেচনা করে নতুন সতর্কবার্তা জারি করেছে ভারতীয় রেল দপ্তর। বিশেষত দূরপাল্লার ট্রেনে যারা যাতায়াত করার কথা ভাবছেন তাদের রেলের তরফ থেকে জারি করা সতর্কবার্তা জেনে রাখা প্রয়োজন।

ভারতীয় রেলের তরফ থেকে সোশ্যাল মিডিয়ায় সাফ জানিয়ে দেওয়া হয়েছে যে এবার থেকে ট্রেন যাত্রা সময় কোনরকম দাহ্য পদার্থ বহন করা যাবে না। ভ্রমণের সময় কেউ যদি কেরোসিন, পেট্রোল, আতশবাজি কিংবা গ্যাস সিলিন্ডার ইত্যাদি দাহ্য বস্তু বহন করেন তাহলে তা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধের আওতায় ধরা হবে।

রেলের আইন ভঙ্গকারীদের 1989 এর 164 ধারার আওতায় হাজার টাকা জরিমানা অথবা তিন বছরের জেল হতে পারে। যদি কেউ ধার্য পদার্থ নিয়ে ধরা পড়েন সে ক্ষেত্রে তার জরিমানা এবং জেলহাজত দুটোই হতে পারে। রেলে ধূমপান অর্থাৎ সিগারেট, বিড়ি খাওয়া শাস্তিযোগ্য অপরাধ হিসেবে গণ্য করা হয়। ধুমপান করতে করতে কেউ যদি ধরা পড়েন তাহলে তার তিন বছরের জেল এবং তার সঙ্গে জরিমানা হতে পারে।

বর্তমানে ট্রেনে দুর্ঘটনা এবং অগ্নিসংযোগের ঘটনা অনেক বেড়েছে। এই কারণে যে কোনো রকম দাহ্য পদার্থ নিষিদ্ধ করা হয়েছে ট্রেন যাত্রায়। ট্রেন সফর করার আগে এবার থেকে তাই এই সতর্কবার্তা মেনে চলুন।