পুত্রের পিতৃত্বের উপর বাবার অধিকার থাকতে পারে না, এমনই ঐতিহাসিক রায় দিল কলকাতা হাইকোর্ট

5
পুত্রের পিতৃত্বের উপর বাবার অধিকার থাকতে পারে না, এমনই ঐতিহাসিক রায় দিল কলকাতা হাইকোর্ট

“কোনো ব্যক্তির পিতৃত্বের উপর সেই ব্যক্তির মৃত্যুর পর তার স্ত্রীর সর্বাগ্রে অধিকার থাকবে, মৃত ব্যক্তির বাবা কিংবা পরিবারের অন্যান্যদের নয়!” এমনই ঐতিহাসিক এবং বেনজির রায় দিল কলকাতা হাইকোর্ট। একটি মামলার পরিপ্রেক্ষিতে হাইকোর্টের বিচারপতি সব্যসাচী ভট্টাচার্য্য জানিয়েছেন, স্বামীর সংরক্ষিত বীর্যের উপর প্রথম অধিকার থাকবে স্ত্রীর। সেই বীর্য নিয়ে ব্যক্তির স্ত্রী নিজে গর্ভবতী হবেন না অন্য কাউকে তা প্রদান করা হবে, সে বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবেন স্ত্রী।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, থ্যালাসেমিয়া আক্রান্ত এক ব্যক্তি বহুদিন ধরেই দিল্লির একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। হাসপাতালে থাকাকালীন তিনি ভবিষ্যতে তার বংশ রক্ষার উদ্দেশ্যে বীর্য সংরক্ষণের সিদ্ধান্ত নেন। সেইমতো ওই ব্যক্তির বীর্য সংরক্ষণ করা হয়। ওই ব্যক্তির মৃত্যুর পর মৃত ব্যক্তির ব্যক্তির পিতৃত্বের অধিকার নিয়ে টানাপোড়েন শুরু হয়। মৃত ব্যক্তির বাবা সম্প্রতি তার মৃত সন্তানের পিতৃত্বের অধিকার নিয়ে হাইকোর্টে মামলা দায়ের করেন।

এই মামলার শুনানির সময় ঐতিহাসিক রায় প্রদান করে কলকাতা হাইকোর্ট। হাইকোর্টের বিচারপতি জানিয়ে দেন, পিতা-পুত্রের সম্পর্কের জেরে কোনো ব্যক্তির পিতৃত্বের অধিকারের উপর ওই ব্যক্তির পরিবার কোনো হস্তক্ষেপ করতে পারবে না। এক্ষেত্রে ব্যক্তির পিতৃত্বের প্রধান অধিকার থাকবে ওই ব্যক্তির স্ত্রীর। ওই সংরক্ষিত বীর্য নিয়ে মৃতের স্ত্রী নিজে গর্ভধারণ করবেন নাকি অন্য কাউকে তা দেওয়া হবে, সেক্ষেত্রে মৃত ব্যক্তির স্ত্রীর অনুমতি প্রয়োজন হবে।

কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি এদিন রায় প্রদানের সময় ভারতীয় সংবিধানের ১২ নম্বর ধারার প্রতি জোর প্রদান করেন। হাইকোর্টের এই রায় এদিন স্পষ্ট করে দিয়েছে পুত্রের পিতৃত্বের উপর বাবার অধিকার থাকতে পারে না। হাইকোর্টের এই রায় প্রদানে স্বভাবতই সমাজে বেশ আলোড়ন পড়ে গিয়েছে।