বোতলে করে দুধ খাওয়ানোর ফলে মারাত্মক ক্ষতি হচ্ছে শিশুর, সম্প্রতি এমনটাই জানালো একদল গবেষক

5
বোতলে করে দুধ খাওয়ানোর ফলে মারাত্মক ক্ষতি হচ্ছে শিশুর, সম্প্রতি এমনটাই জানালো একদল গবেষক

আপনারা হয়তো অনেকেই নিজেদের কাজের সুবিধার্থে আপনাদের শিশুদেরকে দুধের বোতলে করে দুধ খাওয়াছেন। কিন্তু এর ফলে যে আপনার শিশুর মারাত্মক ক্ষতি হচ্ছে তা হয়তো আপনাদের অজানা। এই বিষয়ে গবেষণায় উঠে এলো এক চাঞ্চল্যকর তথ্য যেখানে দেখা গিয়েছে, আপনারা আপনাদের শিশুদের দুধের বোতলে করে দুধ খাওয়াচ্ছেন, তারফলে আপনার বাচ্চার দেহে মাইক্রোপ্লাস্টিক ঢুকে যাচ্ছে, যা শরীরের পক্ষে খুবই ক্ষতিকারক। এমনটাই সম্প্রতি জানালেন এক গবেষক দল।

গবেষকদলরা কিছুদিন আগেই গবেষণা করছিলেন বাচ্চাদের দুধের বোতল নিয়ে। সেখানেই তারা দেখতে পেলেন এই বোতলগুলি থেকে মাইক্রোপ্লাস্টিক তৈরি হয় এবং আপনাদের অজান্তেই আপনার শিশুরা দুধের সাথে মাইক্রোপ্লাস্টিক খেয়ে ফেলেছে যারফলে তাদের দেহে বিষক্রিয়ায় সৃষ্টি হতে। তাই প্রত্যককে ওই গবেষক দল এই বিষয়ে সচেতন হতে বলেছেন।

আসলে গবেষণা করা হয়েছিল কতজন শিশু বোতলে দুধ পান করেন অন্যদিকে কতজন শিশু স্তন্যপান করে। সেই পরীক্ষা করতেই গবেষকদের কাছে এই চাঞ্চল্যকর তথ্য উঠে আসে, এক বারো মাসের শিশুকে এর পরীক্ষা নেওয়া হয় যে দুধের বোতলের দুধ পান করে। দেখা যায় সেই শিশুটি প্রতিদিন ১.৬ মিলিয়ন মাইক্রোপ্লাস্টিক দেহে যাচ্ছে দুধ পান করার মাধ্যমে। এছাড়াও আমরা শিশুকে দুধের বোতল দেওয়ার আগে, সেই দুধের বোতলকে গরম জলে ফুটিয়ে নিতাম জীবাণুমুক্ত করার জন্য। কিন্তু গরম জলে ওই বোতল জীবানুমুক্ত করার ফলে আরো বেশি মাইক্রোপ্লাস্টিক নির্গত হয়, এমনটাই তথ্য উঠে আসল গবেষণায়।

এছাড়াও আমরা প্লাস্টিকের বোতলে জল খাই প্লাস্টিকের কৌটাতে খাবার রাখি। তার ফলে আমাদের দেহে মাইক্রোপ্লাস্টিক প্রবেশ করছে প্রায় ১.৩- ১৬.২ লক্ষ মিলিয়ন মাইক্রোপ্লাস্টিক, আমাদের দেহে চরম ক্ষতি হচ্ছে তা গবেষকরা প্রমাণ করলেন। তাই গবেষকদল ওরা এই বিষয়ে সবাইকে সচেতন হতে বলেছেন বিশেষত শিশুদের দুধের বোতল নিয়ে।