ধর্ম এবং সাম্প্রদায়িক বিদ্বেষ কে উস্কে দেওয়ার অভিযোগে বান্দ্রা থানায় তলব বলিউড কুইন কঙ্গনাকে

6
ধর্ম এবং সাম্প্রদায়িক বিদ্বেষ কে উস্কে দেওয়ার অভিযোগে বান্দ্রা থানায় তলব বলিউড কুইন কঙ্গনাকে

সুশান্তের মৃত্যুর পর থেকেই সোশ্যাল মিডিয়াতে বেশ সরব ছিলেন বলিউডের জনপ্রিয় অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাওয়াত। বহু বিতর্কে র শেষে তার আগামী সিনেমা জয়ললিতার শুটিং শুরু হয়ে যায়। তবে সম্প্রতি কঙ্কণার আদালতের সামনে আসতে চলেছে একটি মহা বিপদ। বলিউড কুইন’ কঙ্গনা এবং তার বোনের বিরুদ্ধে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট এবং সাক্ষাতকারের মাধ্যমে বিভিন্ন সাম্প্রদায়িক বিভাজনের চেষ্টার অভিযোগ করে এফআইআর নির্দেশ দিয়েছে আদালত। এবার সেই মামলা সূত্র ধরে তাদেরকে থানায় তলব করে ডেকে পাঠানো হয়েছে।

সুখের মারফত খবর, আগামী ২৬ এবং ২৭ শে অক্টোবর এবং তার বোনকে পুলিশ স্টেশনে ডেকে পাঠিয়েছে পুলিশ। এতদিন ধরে সোশ্যাল মিডিয়াতে বহুজনের গ্রেপ্তারের দাবি জানানোর পর অবশেষে তাদেরই বড় বিপদের মুখে পড়তে হলো

সম্প্রতি একটি ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়াতে ভাইরাল হয়েছিল যেখানে দেখা যাচ্ছিল যে পারিবারিক একটি বিয়ের অনুষ্ঠানে মেতেছেন কঙ্কণা এবং তার পরিবারের সকলে। মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট জয় দে বলেছেন, এ সংক্রান্ত অভিযোগ এবং সংশ্লিষ্ট নথিপত্র খতিয়ে দেখার পর আমার ধারণা অভিযুক্তরা অপরাধ করেছেন। তবে এই বিষয়ে আরো বেশি বিশ্লেষণ এর দরকার। তার জন্য অভিযুক্তদের বাড়িতে তল্লাশি চালানো এবং তাদের জিনিসপত্র বাজেয়াপ্ত করা যেতে পারে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, বান্দ্রা মেট্রোপলিটন আদালতে একজন ব্যক্তি করে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট নিয়ে হাজির হয়েছিলেন। সেখানেই প্রথম দেখা যায় যে কঙ্কণা এবং তার বোন ধর্ম এবং সাম্প্রদায়িক বিদ্বেষ কে উস্কে দেওয়া পোস্ট করেছেন। চিরকালই কঙ্গনা বিতর্কিত মন্তব্যের জেরে সমালোচনার শিকার হতেন। কিন্তু এইভাবে কোনদিন তাকে পুলিশের কাছে হাজিরা দিতে হবে তা হয়তো তিনি কোনদিন স্বপ্নেও ভাবতে পারেনি।

রং করার বিষয়টি বিস্তারিতভাবে খতিয়ে দেখার জন্য এবার এফআইআর দায়ের করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে আদালতের পক্ষ থেকে। ২৯৫,১৫৩, এ ও আইপিসি র ১২৪ এ অভিযোগ লিপিবদ্ধ করা হয়েছে। কঙ্গনা পাশাপাশি তার দিদির নাম জড়িয়েছে এই অপরাধের সঙ্গে। বিষয়টি খতিয়ে দেখার জন্য আদেশ জানিয়েছেন মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট জয়দেব।