নদী থেকে কৃষ্ণমূর্তি কুড়িয়ে পেয়ে বিপাকে মুসলিম যুবক

19
নদী থেকে কৃষ্ণমূর্তি কুড়িয়ে পেয়ে বিপাকে মুসলিম যুবক

পথে চলতে চলতে নদী থেকে কৃষ্ণমূর্তি কুড়িয়ে পেয়েছিলেন একজন মুসলিম যুবক। তার পর থেকে তিনি সেই মূর্তি নিজের বাড়িতেই রেখে দিয়েছিলেন। তাকে তার এক প্রতিবেশী জানিয়েছিলেন এই মূর্তিটি হতে পারে সোনার মূর্তি। তাই তিনি বাড়িতেই রেখেছিলেন হিন্দু দেবতার মূর্তি। তবে সেই মূর্তি নাকি তাকে স্বপ্নাদেশ দিতে শুরু করে। তাই শেষমেষ মূর্তিটিকে তিনি হিন্দু মন্দিরে ফিরিয়ে দিয়ে এসেছেন।

বীরভূম জেলার পাথরচাপুরি গ্রামের বাসিন্দা ওই যুবকের নাম শেখ বুজু রহমান। তিনি পেশায় একজন কোয়াক চিকিৎসক। সম্প্রতি তিনি ঝাড়খন্ড যাচ্ছিলেন চিকিৎসা করার জন্য। সেখানে যাওয়ার সময় আমজোড়া ব্রিজের কাছে তিনি একটি কৃষ্ণমূর্তি পড়ে থাকতে দেখেন। তিনি সেই মূর্তিটি কুড়িয়ে নিজের বাড়িতে রেখে দেন।

বাড়িতে এসে সেটিকে রাখার কয়েকদিন পর থেকেই তিনি স্বপ্নাদেশ পেতে শুরু করেন। অভিযোগ জানিয়েছেন তার এক প্রতিবেশীকে মূর্তিটি দেখানোর পর তিনি বলেন এটি সোনার হতে পারে। তাই তিনি মূর্তিটিকে নিজের বাড়িতেই রেখে দিয়েছিলেন। তারপরেই সমস্যা তৈরি হয়।

ওই যুবক জানাচ্ছেন মূর্তিটি কখনো তাকে খেতে দেওয়ার জন্য কিংবা কাছাকাছি কোনও মন্দিরে রেখে আসার জন্য বায়না করতে থাকে। তারপর তিনি রাস পূর্ণিমার দিন রাজা পুকুরের কৃষ্ণ মন্দিরে রেখে আসেন ওই মূর্তি। মন্দিরের পুরোহিতও মূর্তি পাওয়ার কথা স্বীকার করেছেন।