ভোটের আগে বড় উদ্দ্যগ! রাজ্যের প্রত্যেক পরিবারকে স্বাস্থ্য সাথী প্রকল্পের আওতায় আনল রাজ্য সরকার

24
ভোটের আগে বড় উদ্দ্যগ! রাজ্যের প্রত্যেক পরিবারকে স্বাস্থ্য সাথী প্রকল্পের আওতায় আনল রাজ্য সরকার

আসন্ন একুশের বিধানসভা নির্বাচনের আগে রাজ্যবাসীকে স্বাস্থ্য খাতে পরিষেবা দিতে এক নতুন উদ্যোগ গ্রহণ করলো রাজ্য সরকার। রাজ্য সরকারের স্বাস্থ্য সাথী প্রকল্পের প্রসারণ ঘটলো। অর্থাৎ এবার থেকে রাজ্যের প্রত্যেক পরিবার স্বাস্থ্য সাথী প্রকল্পের সুযোগ পাবে। বর্তমানে রাজ্যের সাড়ে সাত কোটি মানুষ এই প্রকল্পের সুবিধা পেয়ে থাকেন। এবার সংখ্যাটা আরও আড়াই কোটি বাড়ানো হবে। ফলে রাজ্যের প্রতিটি পরিবার স্বাস্থ্য সাথী প্রকল্পের সুবিধা নিতে পারবেন।

স্বাস্থ্য সাথী প্রকল্পের আওতায় এতদিন সরকারি হাসপাতালগুলিতে ক্যাশলেস চিকিৎসা পরিষেবা পাওয়া যেত। কিন্তু এবার বেসরকারি হাসপাতালগুলোকেও এই প্রকল্পের আওতায় আনা হচ্ছে। প্রতিটি পরিবারকে স্বাস্থ্যসাথীর স্মার্ট কার্ড বানিয়ে দেওয়া হবে। সরকারি বা বেসরকারি, উভয় ক্ষেত্রেই এই স্মার্ট কার্ড ব্যবহার করে ক্যাশলেস চিকিৎসা পরিষেবা পাওয়া যাবে বলে জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

উল্লেখ্য, স্বাস্থ্য সাথী প্রকল্পের আওতায় প্রতিবছর পাঁচ লক্ষ টাকা পর্যন্ত ক্যাশলেস চিকিৎসা পরিষেবা পাওয়া যায়। তবে অন্য কোনো সরকারি স্বাস্থ্য পরিষেবার সঙ্গে যুক্ত থাকলে স্বাস্থ্য সাথী প্রকল্পের অন্তর্ভুক্ত হওয়া যাবে না। পয়লা ডিসেম্বর থেকে রাজ্য সরকারের তরফ থেকে “দুয়ারে দুয়ারে সরকার” ক্যাম্পের আয়োজন করা হয়েছে। সরকারি আধিকারিকরা রাজ্যের প্রতিটি ব্লকে এই ক্যাম্পের আয়োজন করবেন।

মুখ্যমন্ত্রী বক্তব্য অনুসারে, “দুয়ারে দুয়ারে ক্যাম্প” যখন আয়োজন করা হবে তখন আবেদনকারীকে গিয়ে নাম লিখিয়ে আসতে হবে। এরপর আবেদনকারীর নামে স্মার্ট কার্ড চলে আসবে। পরিবারের প্রত্যেক সদস্যের নাম থাকবে তাতে। মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, রাজ্যের প্রায় দশকোটি মানুষকে এই প্রকল্পের আওতায় আনতে গেলে রাজ্য সরকারের কোষাগার থেকে অন্তত দুই হাজার কোটি টাকা খরচ হবে। নির্বাচনের আগে সরকারের এই নতুন উদ্যোগ স্বভাবতই ভোটের লড়াইয়ে তৃণমূল সরকারকে বেশ কয়েক কদম এগিয়ে দেবে বলেই মনে করছে রাজনৈতিক মহল।