ATM থেকে বেরোল ২০০ টাকার জাল নোট! চাঞ্চল্য মাথাভাঙ্গায়

37
ATM থেকে বেরোল ২০০ টাকার জাল নোট! চাঞ্চল্য মাথাভাঙ্গায়

অবিশ্বাস্য বললেও ভুল। ATM থেকে যেটা বেরোল তাতে দুশ্চিন্তার মেঘ মাথাভাঙ্গায়। ২০০ টাকার জাল নোট ঘিরে দুশ্চিন্তার পারদ চড়ছে গোটা মাথাভাঙ্গা এলাকায়।

এতদিন মিলত ৫০০, ২০০০ টাকার জাল নোট, কিন্তু এবারে মিলশ ২০০ টাকার জাল নোট। এই ঘটনা ঘটেছে কোচবিহারের মাথাভাঙ্গায়। তবে, জাল নোট কোনও ব্যক্তির কাছে নয়, বরং ATM থেকে বেরিয়েছে। ফলে ২০০ টাকার জাল নোট ঘিরে দুশ্চিন্তা গোটা এলাকায়।

ওয়াকিবহাল মহলের মতে, ২০০০ টাকার জাল নোট পাচারে ঝুঁকি বেড়েছে সীমান্তে। ফলে জাল নোটের মাফিয়ারা এখন ছোট অঙ্কের নোট জাল করার দিকে ঝুঁকছে। বিদেশি শক্তির মদতে তারা এখন ৫০, ২০০ ও ৫০০ টাকার নোট বেশি করে জাল করার চেষ্টা চালাচ্ছে বলে অভিযোগ।

মাথাভাঙ্গায় যে ব্যক্তি এটিএম থেকে ওই জাল নোট পেয়েছেন তার নাম সফিকুল হুসেইন। তিনি বলেন, ‘আমি ATM গিয়ে মোট ৫ হাজার টাকা তুলেছিলাম। তার মধ্যে ৫০০ টাকার ৯টি নোট পেয়েছি, দুটি ২০০ টাকার নোট ছিল আর ১টি ১০০ টাকার নোট বেরিয়েছিল। কিন্তু হাতে টাকা নিয়ে ২০০ টাকার দুটি নোটের মধ্যে একটি আমার অন্যরকম দেখতে লেগেছিল। সেই নোটটি ছিল তুলনামূলক অনেকটাই পাতলা এবং রংও ছিল হালকা। এমনকী নোটটিতে মহাত্মা গান্ধীর ছবি বা RBI লেখাও ছিল না।’

পরে ATM থেকে জাল নোট বেরোনোর কথা এলাকায় চাউড় হতেই স্থানীয় মানুষজনের মধ্যে ক্ষোভ জমতে থাকে। রাতের দিকে ওই ATM-এ ব্যাঙ্ক থেকে টাকা ভরার গাড়ি এলে তা ঘিরে বিক্ষোভ দেখান স্থানীয় মানুষজন। এটিএম থেকে জাল নোট বের হওয়ার খবর পৌঁছেছে পুলিশের কাছে।

মাথাভাঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত অফিসার জানিয়েছেন, “মাথাভাঙ্গার কানফাটা এলাকার যুবক সফিকুল হুসেইন শহরেরই একটি ATM থেকে জাল ২০০ টাকা পেয়েছেন বলে অভিযোগ এসেছে।”