পোস্টমর্টেম করার আগেই নরে উঠলো যুবক, হতবাক পরিবার

12
পোস্টমর্টেম করার আগেই নরে উঠলো যুবক, হতবাক পরিবার

একেই হয়তো বলে মৃত্যুর মুখ থেকে ফিরে আসা, কর্নাটকের ২৭ বছরের এক যুবককে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ মৃত বলে ঘোষণা করে দিয়েছিল কিন্তু ঘটলো এক চমক যা দেখে হতবাক সবাই। পথ দুর্ঘটনায় আহত হয়ে কর্নাটকের সেই যুবক একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন, সেখানেই চিকিৎসকরা জানিয়ে দিয়েছিল যুবকের ব্রেন ডেথ হয়েছে। চিকিৎসা ভাষায় যাকে মৃত বলে ঘোষণা করা হয়, সেই কারণেই পরিবারকে মরদেহ নিয়ে যাওয়ার কথা জানায় তারা।

এরপরেই সরকারি হাসপাতালে পোস্টমর্টেম করার জন্য নিয়ে যাওয়া হলে সেখানেই চিকিৎসক শরীরে আঘাত করতেই নড়ে ওঠে যুবক। এরপরে সাথে সাথে পালস্ চেক করে জানা যায় এখনো বেঁচে রয়েছে সে, সাথে সাথে অক্সিজেন মাস্ক লাগানো হয়, আর জানানো হয় এখনও বেঁচে রয়েছে যুবক।

যুবকের নাম শঙ্কর গোম্বী, গত ২৭ ফেব্রুয়ারি এই অ্যাক্সিডেন্ট হয় যেখানে বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করে দুইদিন চিকিৎসকদের পর্যবেক্ষণে রাখা হয়, আর সেখান থেকে ঘোষণা করে দেওয়া হয় যুবকের ব্রেন ডেড হয়েছে, কিন্তু পোস্টমর্টেমের জন্য যখনি মহালিঙ্গাপুরাম এর সরকারি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়, সেখানে থাকা চিকিৎসক যুবকের শরীরে জোরে আঘাত করতেই নড়ে ওঠে সে।

এর পরই তড়িঘড়ি করে অক্সিজেন মাস্ক লাগানো হয় ও পালস্ চেক করা হয়, উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে বেসরকারি হাসপাতালে পাঠানো হয়। স্বাভাবিকভাবেই পরিবারের প্রত্যেকে এই খবর পেয়ে একেবারে চমকে ওঠে, কারণ তারা মৃতদেহ সৎকারের জন্য প্রস্তুত হচ্ছিলেন।