শিশু জম্মানোর পর যে কঠিন রোগ গুলিতে আক্রান্ত হতে পারে

414
শিশু জম্মানোর পর যে কঠিন রোগ গুলিতে আক্রান্ত হতে পারে

বাচ্চাদের  অসুখবিসুখ লেগেই থাকে জন্মের পর থেকেই এবং এটা কোনও অস্বাভাবিক ব্যাপার নয়।  এই সময় তাদের দেহের রোগ প্রতিরোধ করার ক্ষমতা বেশ কম থাকে বলে বিভিন্ন রোগ দেখা দেয়। সে জন্য নিচে দেওয়া রইল এমন কিছু রোগ যা নবজাতক শিশুদের আক্রমণ করতেই পারে এবং যেগুলো সম্বন্ধে সজাগ থাকাটা অত্যন্ত জরুরী।

হাম

হাম এক অত্যন্ত সংক্রামক রোগ আর এটা ছড়ায় যে কোনও সংক্রমিত ব্যক্তির কাশি বা হাঁচির মাধ্যমে। এতে শুরুর দিকে সর্দিকাশি আর জ্বর থাকে। দুই দিনের মাথায় দেখা দেয় অন্যান্য সমস্যা যেমন শ্বাসনালীর বন্ধ হয়ে আসা (ব্রঙ্কাইটিস), ফুসফুসে সংক্রমণ ( ব্রোঙ্কিওলাইটিস), কানের সংক্রমণ বা বাচ্চাদের গলা ফুলে যাওয়ার মত উপসর্গ।

নিউমোনিয়া

নিউমোনিয়ার মত সংক্রমণ নবজাতক শিশুদের ক্ষেত্রে প্রায়ই দেখা যায়, এতে ফুসফুসে ইনফেকশন ছড়িয়ে পড়ে। নিউমোনিয়া হলে ফুসফুস ফুলে ওঠে এবং ফুসফুসের ভিতর তরল পদার্থ জমা হয় যার ফলে বাচ্চারা একটানা কাশিতে ভুগতে পারে, এমন কি শ্বাসকষ্ট দেখা দেওয়াও আশ্চর্য নয়।  যদি দেখেন যে অতিরিক্ত সর্দির ফলে শিশুর স্তন্যপান করতে বা নিঃশ্বাস নিতে কষ্ট হচ্ছে, তাহলে তৎক্ষণাৎ ডাক্তারের পরামর্শ নিন।

জন্ডিস

জন্মের পরেই শিশুরা যে সব রোগে ভুগতে পারে, জন্ডিস একটি মধ্যে অন্যতম। তবে এতে ভয় পাওয়ার কোনও কারণ নেই। রক্তে বিলিরুবিনের পরিমাণ অত্যধিক বেড়ে যাওয়াই হচ্ছে নবজাতক শিশুর জন্ডিস হওয়ার মূল কারণ। ডাক্তারের কথা মত চললে নবজাতক শিশুদের জন্ডিস সারিয়ে তোলা খুব একটা কঠিন ব্যাপার নয়।

ভাইরাল ইনফেকশন

শিশুর ভাইরাল জ্বর বা ফ্লু হতে পারে, সেগুলোর উৎসও আমাদের আশপাশে থাকে, যে কোন সংক্রমিত ব্যক্তির কাশি বা হাঁচি থেকেই এই সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়তে পারে। শিশুর মধ্যে ভাইরাল জ্বরের লক্ষণ দেখতে পেলেই অবিলম্বে ডাক্তারের কাছে ছোটা উচিৎ।