শীতের মরসুমে নিজেকে সুস্থ রাখতে এড়িয়ে চলুন এই খাবার গুলি

8
শীতের মরসুমে নিজেকে সুস্থ রাখতে এড়িয়ে চলুন এই খাবার গুলি

শীতের মরসুমে নিজেকে আরো ফিট রাখতে তাই অবশ্যই এড়িয়ে চলতে হবে কিছু খাবার, যাতে করে নিজের ফিটনেস বজায় থাকে এবং আমাদের সকলেরই একটাই কাম্য সকলে যেন সুস্থ ও ফিট থাকতে পারি।

তার জন্য বিশেষত আধুনিকতার মোড়কে নিজেকে মুড়ে যে সমস্ত ব্রেকফাস্টে আমরা এখন নিজেকে অভ্যস্ত করে ফেলেছি তা যে আসলে কতটা ক্ষতিকারক তা আমরা বুঝি না। বর্তমানে আমাদের মধ্যে এখন সবথেকে বেশি যে রোগ দুটি বাসা বাঁধছে তা হল ডায়াবেটিস অর্থাৎ সুগার এবং হাইপারটেনশন অর্থাৎ ব্লাড প্রেসার।

যা থেকে আরও অনেক রোগ বাসা বাঁধতে পারে আমাদের শরীরে। আসুন জেনে নেওয়া যাক, সেই সমস্ত কিছু খাবারের বিষয়ে যেগুলি আমাদের শরীরের জন্য অত্যন্ত হানিকারক। আমাদের এখন পছন্দ বিভিন্ন ধরনের ফ্লেভারড লো ফ্যাট ইয়োগার্ট। যেগুলো আমাদের হাতের কাছে খুব সহজেই আমরা এখন পেয়ে যাই, কিন্তু এই সমস্ত ফ্লেভার ইয়োগার্ট যে সমস্ত চিনি ও কৃত্রিম উপাদান থাকে তাতে শরীরের ওজন বাড়ে।

এমনকি বুকে মিউকাস জমারও ঝুঁকি থাকে। এছাড়াও আমরা বিভিন্ন ধরনের সিরিয়ালস্ এখন ব্রেকফাস্ট খাওয়া পছন্দ করি, কিন্তু আদৌ এই সমস্ত সিরিয়ালসে্ ফাইবার ও প্রোটিন থাকে কিনা তা আমরা খতিয়ে দেখিনা। খতিয়ে দেখলে দেখতে পাওয়া যায়, যে সমস্ত অ্যাডেড সুগার এতে থাকে তা শরীরের পক্ষে অত্যন্ত ক্ষতিকর। তাই এই সমস্ত সিরিয়ালস্ এড়িয়ে চলাই শ্রেয়।

এছাড়াও আমাদের অনেকেরই পছন্দ বিভিন্ন ধরনের ফ্রুট জুস, সকালে ঘুম থেকে উঠেই ব্রেকফাস্টে আমরা জুস খেয়ে থাকি। তবে এতে যে সমস্ত চিনি থাকে তাতে ডায়াবেটিস হওয়ার আশঙ্কা আরো বাড়িয়ে দেয়, এমনকি ওবিসিটি সমস্যাও দেখা দিতে পারে। এছাড়াও রয়েছে প্যানকেক, ওয়াফল, মাফিনের মতো মুখরোচক ব্রেকফাস্ট। কিন্তু প্যানকেক খাওয়ার পরেই আমাদের শরীর অত্যন্ত অলস এবং ক্লান্ত হতে শুরু করে।

তার কারণ এর মধ্যে থাকা রিফাইন ফ্লাওয়ার ও চিনি। এমনকি মাহফিল তৈরিতেও যে সমস্ত রিফাইন ময়দা ভেজিটেবল অয়েল, চিনি, ডিম, এমনকি চকো চিপস, হুইপড ক্রিম থাকে তা আমাদের সুগার লেভেলও হাই করে তুলতে পারে। সবশেষে বলা যেতে পারে, যে সমস্ত খাবার আলোচনা করা হলো তার মধ্যে পুষ্টিগুণ পরিমাণ খুবই কম থাকে, অথচ আমরা সেগুলোই শরীরের ফিটনেস হিসেবে গ্রহণ করে থাকি, সম্পূর্ণ যে ভুল ধারণা রয়েছে আমাদের তাতে কোনো দ্বিমত নেই।