ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর প্রচেষ্টায় ব্যর্থ হল পাক জঙ্গিদের অস্ত্র পাচারের চেষ্টা

16
ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর প্রচেষ্টায় ব্যর্থ হল পাক জঙ্গিদের অস্ত্র পাচারের চেষ্টা

ড্রোনের মাধ্যমে সীমান্তের ওপার থেকে এপারের জঙ্গিদের কাছে অস্ত্র-শস্ত্র পৌঁছে দেওয়ার নতুন ষড়যন্ত্র শুরু করেছে পাকিস্তানি জঙ্গিরা’। ইতিপূর্বে বহুবার তাদের সেই পরিকল্পনা ব্যর্থ করে দিয়েছে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী। সম্প্রতি, জম্মু ও কাশ্মীরের সাম্বা এলাকাতেও ঠিক একইভাবে অস্ত্র পাচারের ষড়যন্ত্র করে পাকিস্তানি রেঞ্জাররা। এবারেও তাদের সেই পরিকল্পনা ব্যর্থ করে দিয়েছে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী।

বিশিষ্ট সূত্রে খবর, ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর কাছে খবর ছিল পাক রেঞ্জাররা ড্রোন ব্যবহার করে সীমান্তের ওপার থেকে প্রচুর অস্ত্র শস্ত্র এপারে পাচার করেছে। এই খবর পেয়েই গত সোমবার জম্মু-কাশ্মীরের রামবান এলাকায় তল্লাশি চালায় জম্বু কাশ্মীর পুলিশ। সেখানে পাক মদদপুষ্ট jaish-e-mohammed জঙ্গী সংগঠনের একটি গোপন জঙ্গী ঘাঁটির সন্ধান পান নিরাপত্তা রক্ষী বাহিনী।

সেই জঙ্গি ঘাঁটিতে তল্লাশি চালাতে গিয়ে জইশ-ই-মোহাম্মদ জঙ্গী সংগঠনের দুই সক্রিয় জঙ্গি উমর আহমেদ মালিক ও সুহেল আহমেদ মালিককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এছাড়াও ওই জঙ্গি ঘাঁটিতে সীমান্তের ওপার থেকে আগত দুটি একে-৪৭, একটি পিস্তুল, ১৬টি গ্রেনেড, ১৯ একে-ম্যাগাজিন, ২৬৯টি তাজা কার্তুজ-সহ আরও অনেক অস্ত্র বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে বলে জানানো হয়েছে।

ধৃত ওই দুই জঙ্গি অনন্তনাগ জেলার বিজবেহরার সেমথান এলাকার বাসিন্দা বলে জানানো হয়েছে। ধৃতদের জেরা করে জানা গিয়েছে সম্প্রতি এই অস্ত্র-গুলি সীমান্তের ওপার থেকে সাম্বা জেলার বিজয়পুর এলাকায় পাচার করে পাকিস্তানি রেঞ্জাররা। পাকিস্তানের মদতপুষ্ট জইশ জঙ্গি গোষ্ঠীর কাশ্মীরের দায়িত্বপ্রাপ্ত হ্যান্ডেলার আকিব ওরফে আলফার নির্দেশে ওই দুই জঙ্গি সেগুলিকে লুকিয়ে রাখার ব্যবস্থা করেছিল।