পুলিশের উদ্যোগে প্রাণ বাঁচল পোষ্যের, ঝড়, জলের রাতেই প্রসব

67
পুলিশের উদ্যোগে প্রাণ বাঁচল পোষ্যের, ঝড়, জলের রাতেই প্রসব

বর্তমানে গোটা রাজ্য জুড়ে চলছে লকডাউন এবং কোয়ারেন্টাইন পরিস্থিতি।করোনার থাবা এক অভিশাপ হিসেবে ছড়িয়ে পড়েছে চারিদিকে।এরম এক দুর্বিষহ পরিস্থিতিতে হুগলি তে ঘটে গেলো এক অভাবনীয় ঘটনা। তবে এর জন্য যথেষ্ট কৃতিত্ব রয়েছে পুলিশের। কারণ পুলিশের সাহায্য ছাড়া এই ঘটনার অন্তিম পর্ব যথেষ্ট বেদনাদায়ক হত।

জানা গিয়েছে, মাস দুয়েক আগে হুগলির হাজারি বাড়ির পোষ্য এক কুকুর, যার নাম হল ডেইজি। সে হয়ে পড়ে অন্তঃসত্ত্বা। তখন গোটা পরিবার এই সংবাদে আনন্দে আত্মহারা হয়ে পড়ে। কিন্ত বাঁধ সাধে মাঝের লকডাউন পরিস্থিতি। কারণ প্রথম পর্বের টানা ২১দিনের লকডাউন এই প্রহর গুণতে শুরু করে এই পরিবার এবং ডেইজি কবে প্রসব শুরু করবে এই বিষয়ে যথেষ্ট চিন্তিত হয়ে পড়ে। কিন্ত লকডাউন এখানেই থেমে থাকে না বরং বেড়ে গিয়ে সেটি দ্বিতীয় পর্যায়ে পৌঁছে যায়।

প্রসঙ্গত, তখনই চিন্তার কালো মেঘ নেমে আসে এই পরিবারের উপর। হঠাৎই সোমবার ঝড় জলের রাতে প্রসব শুরু করে ডেইজি। এই সময়ে ডেইজির চিকিৎসকের কাছে ফোন করে ব্যারাকপুরে পরামর্শ নেন তাঁরা। ধীরে ধীরে সাতটি শাবকের প্রসব করতে করতে হাঁপিয়ে পড়ে সে প্রসব ক্ষমতা একেবারেই তাঁর হীন হয়ে পড়ে এই সময় পুনরায় চিকিৎসক কে ফোন করা হলে তিনি জানান খুব শীঘ্রই ওর অপারেশন করতে হবে।

এই বিষয়ে পরে ওই বাড়ির সদস্য সৌষ্ঠব
হাজারি বলেন, “এরপর আমরা পুলিশের সহযোগিতা ভিক্ষা করতেই তাঁরা আমাদের যথেষ্ট সাহায্য করেন এবং এঁদের জন্যই আজ আমাদের ডেইজি এখনও জীবিত। তবে পেটের তিনটে বাচ্চা কে বাঁচানো যায়নি। ডেইজির স্যালাইন দেওয়া হয়েছে। এখন অনেকটা সুস্থ সে”।