অবিলম্বেই অন্তত ১৬ জন কাউন্সিলর বিজেপি দলে যোগ দেবেন, সোনাচূড়ার জনসভা থেকে হুংকার শুভেন্দুর

17
অবিলম্বেই অন্তত ১৬ জন কাউন্সিলর বিজেপি দলে যোগ দেবেন, সোনাচূড়ার জনসভা থেকে হুংকার শুভেন্দুর

তৃণমূলের এককালীন হেভিওয়েট নেতা শুভেন্দু অধিকারীর পুরনো বছরের শেষ লগ্ন থেকেই রাজনৈতিক প্রেক্ষাপটের লাইমলাইটে ছিলেন। এখনো তিনি তার অবস্থান ধরে রেখেছেন। তৃণমূলের এই হেভিওয়েট নেতা এখন কার্যত বঙ্গে বিজেপির শক্তি বৃদ্ধি করার যজ্ঞে নেমেছেন। তৃণমূলের শক্তিক্ষয় ঘটিয়ে রাজ্যের একাধিক মন্ত্রী, সাংসদ, বিধায়ক, নেতাকর্মীকে নিয়ে গেরুয়া পতাকার ছত্রছায়ায় এসেছেন তিনি। ভবিষ্যতেও বাংলায় বিজেপির জয়ের ধারা বজায় রাখার শপথ গ্রহণ করেছেন শুভেন্দু অধিকারী।

উল্লেখ্য, বাংলার ঘরে ঘরে পদ্ম ফুল ফোটানোর দাবি করেছিলেন শুভেন্দু অধিকারী। এর জন্য অবশ্য তৃণমূলীয় যুবনেতা অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের থেকে কটাক্ষও পেতে হয়েছে তাকে। অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় তাকে লক্ষ্য করে বলেছিলেন, “নিজের ঘরে তো পদ্ম ফোটাতে পারেন না, বাংলার ঘরে ঘরে পদ্ম ফোটাবেন কিভাবে?” তৃণমূলের সেই প্রশ্নেরই জবাব দিলেন শুভেন্দু অধিকারী।

বছরের প্রথম দিনেই কাঁথির জনসভায় শুভেন্দুর নেতৃত্বে বিজেপি শিবিরে যোগদান করলেন তার ভাই সৌমেন্দু অধিকারী। তবে এখানেই থেমে থাকবেন না অধিকারী ভ্রাতৃদ্বয়। বিজেপি দলের সঙ্গে যোগদান করে নন্দীগ্রাম থেকে তৃণমূল হটানোর বার্তা দিয়েছেন শুভেন্দু অধিকারী। শুধু তাই নয়, কাঁথির জনসভায় অংশগ্রহণ করার আগে সোনাচূড়ার জনসভা থেকে শুভেন্দুর হুংকার, কাঁথি থেকে অন্তত ১৬ জন কাউন্সিলর অবিলম্বেই বিজেপি দলে যোগ দেবেন।

আগামী দিনে রাজ্য থেকে অন্তত পাঁচ হাজার বিজেপি সমর্থক পাবে কেন্দ্রীয় শাসক দল! নেপথ্যে শুভেন্দু অধিকারী। শুভেন্দুর আহবানে তৃণমূল দল থেকে অন্তত পাঁচ হাজার কর্মী শীঘ্রই বিজেপির ছত্রছায়ায় আসতে চলেছেন, সোনাচূড়ার জনসভায় এমনটাই দাবি করলেন শুভেন্দু অধিকারী। মোট কথা, শুভেন্দু অধিকারীর বক্তব্য ঘিরে রাজ্য রাজনীতি এই মুহূর্তে রীতিমতো উত্তাল।