জঙ্গী ডেরা ভেবে স্কুলে গুলি চালায় সেনারা, নিহত ৬ পড়ুয়া

4
জঙ্গী ডেরা ভেবে স্কুলে গুলি চালায় সেনারা, নিহত ৬ পড়ুয়া

স্কুলকে জঙ্গীদের ডেরা ভেবে গুলি চালায় সেনারা, যার কারণে নিহত ৬ পড়ুয়া। সেনাদের হেলিকপ্টার থেকে এই গুলি চালানো হয় যার পরিণতি ঘটে এটা। ঘটনাটি ঘটেছে মায়ানমারে। আহতের সংখ্যাও নেহাত কম নয় ১৭ জন পড়ুয়া দারুণ ভাবে আহত হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে মায়ানমারের সাগাইং অঞ্চলের লেট ইয়েট কোন গ্রামের একটি বৌদ্ধ মন্দিরে।

জঙ্গীরা নাকি সেই স্কুলটিকে সন্ত্রাস মূলক কাজের জন্য ব্যবহার করে থাকে। এই খবর পেয়েই সেনারা হামলা করে স্কুলের ওপরে। আর সেই সিদ্ধান্তেই এই ক্ষতি হয়। সংবাদ মাধ্যম সূত্রে জানা গেছে, গুলি লেগে সেখানেই কয়েকজন পড়ুয়া প্রাণ হারায়, বাকিরা আহত হয় পরে তাদের হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। স্যোশাল মিডিয়ায় এই স্কুলের ছবি ইতিমধ্যেই ছড়িয়ে গেছে। সেনারা নাকি সেই সব নিহত শিশুদের ১১ কিমি দূরে একটি শহরে কবর দেয়। স্কুলের মধ্যেকার ছবি দেখলেই বোঝা যায় সেখানে শিশুদের রক্তের দাগ স্পষ্ট।

এই বিষয় নিয়ে সেনা বাহিনীর তরফ থেকে একটি বিবৃতি জারি করা হয়েছে, কাচিন ইন্ডিপেন্ডেন্স আর্মি নাকি কয়েকদিন থেকেই লুকিয়ে রয়েছে, সেনাদের মতে এটি একটি বিদ্রোহী গোষ্ঠী তারা এই স্কুল ও মঠকে কেন্দ্র করেই লুকিয়ে থাকে ও বিভিন্ন সন্ত্রাস মূলক কাজ করে থাকে। সেই খবর পেয়েই সেনারা সেখানে যায়, কিন্তু সেনাদের দেখেই জঙ্গীরা গুলি চালায়।
তবে এই বিবৃতি অনেকেই স্বীকার করে নি। মায়ানমারের গনতন্ত্র পন্থী ন্যাশনাল ইউনিট গভর্নমেন্ট দাবি করেছে, সেনারা এই গুলি ইচ্ছে করেই চালিয়েছে। শুধু তাই নয় সেখানকার শিক্ষক ও পড়ুয়াদের গ্রেফতার পর্যন্ত করা হয়েছে বলে দাবি জানিয়েছে তারা।