“করোনা হলে মুখ্যমন্ত্রীকে জড়িয়ে ধরবো” সম্প্রতি এমনই বিতর্কিত মন্তব্য করলেন অনুপম হাজরা

8

“করোনা হলে, প্রথমেই পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে জড়িয়ে ধরবো!”, মুখ্যমন্ত্রীকে নিয়ে সম্প্রতি এমনই বিতর্কিত মন্তব্য করে বসলেন বিজেপির সর্বভারতীয় যুগ্ম-সম্পাদক অনুপম হাজরা। ইতিমধ্যেই বিরোধী রাজনৈতিক শিবিরগুলি তরফ থেকে তার এই মন্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে কড়া সমালোচনা করা হচ্ছে। রবিবার বারুইপুরে আয়োজিত একটি কর্মসূচিতে যোগদান করতে গিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে এই বিতর্কিত মন্তব্য করে বসেন তিনি।

অনুপম হাজরাকে প্রশ্ন করা হয়েছিল, করোনা হলে তিনি প্রথমেই কি করতে চান। এ বিষয়ে তার স্পষ্ট মন্তব্য, করোনা টেস্ট রিপোর্ট পজিটিভ এলেই তিনি প্রথমেই পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কে জড়িয়ে ধরতে চাইবেন তিনি। উল্লেখ্য, এদিনের কর্মসূচিতে অংশগ্রহণকারীদের মুখে মাস্ক ছিল না। এমনকি অনুপম হাজরার মুখেও এদিন কোনো মাস্ক ছিল না। এ প্রসঙ্গে তাকে জিজ্ঞেস করা হলে তিনি বলেন, বর্তমানে বিজেপি দলের সাথে জড়িত নেতাকর্মীরা তৃণমূলের বিরুদ্ধে একযোগে লড়াই চালাচ্ছেন।

আসন্ন একুশের নির্বাচনকে যেন পাখির চোখ হিসেবে গ্রহণ করেছে রাজ্যের তৃণমূল এবং বিজেপি দলের সদস্যরা। অনুপম হাজরার বক্তব্য, এই মুহূর্তে বিজেপি কর্মীরা করোনার থেকেও অনেকাংশে ভয়ঙ্কর তৃণমূলের বিরুদ্ধে লড়ছে। তার স্পষ্ট দাবি, তৃণমূলের থেকে বড় ক্ষতি আর কেউ করতে পারে না। এদিনের কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করে অনুপম বাবু রাজ্যের করোনা রোগীর দেহ সৎকার নিয়েও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। তার বক্তব্য অনুসারে, করোনায় মৃত রোগীদের যেভাবে দাহ কাজ সম্পন্ন করা হচ্ছে, কুকুর-বিড়ালের ক্ষেত্রেও এমনটা ঘটে না।

এমনকি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রতিও সরাসরি কটাক্ষ ছুড়ে দিয়েছেন তিনি। তিনি বলেছেন, রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর নামেই মমতা। তারমধ্যে মমত্ববোধের ছিটেফোঁটাও নেই, তিনি মমতাময়ী হয়ে উঠতে পারেননি। এদিনের বৈঠকের পরেই স্বরূপ দত্ত নামক তৃণমূলের জেলা সম্পাদক কমিটির সদস্যের বিরুদ্ধে বিজেপির দলীয় কার্যালয়ে ঢুকে অশান্তি ছড়ানোর অভিযোগ তোলা হয়েছে। বিক্ষোভকারীরা অনুপম হাজরার গাড়ি আটকেও বিক্ষোভ প্রদর্শন করতে থাকেন। বিজেপির পূর্ব জেলা দলীয় কার্যালয়ে সভাপতি হরেকৃষ্ণ দত্ত বলেছেন, তৃণমূলের দুষ্কৃতিরাই এই ঘটনার জন্য দায়ী।