মানুষের থেকে জন্তুরা একে অপরের প্রতি বেশি সহনশীল, সম্প্রতি এমনটাই জানালো বিজ্ঞানীরা

6
মানুষের থেকে জন্তুরা একে অপরের প্রতি বেশি সহনশীল, সম্প্রতি এমনটাই জানালো বিজ্ঞানীরা

মানুষের মধ্যে সবথেকে বেশি মানবিকতাবোধ দেখা যায়। কিন্তু কেন তাদের মধ্যে এই বোধ সৃষ্টি হয়? এর উত্তর হলো আল্ট্রুইজম। অন্যকে ভাল রাখা এবং অন্যের ভালো থাকা এই সবকিছুর জন্য এগিয়ে আসা কে বলা হয় আল্ট্রুইজম। যে সমস্ত মানুষ অথবা অন্য কোন প্রাণী নিজের ভালো মন্দ বিচার না করে একেবারে বিনা স্বার্থে অন্যের সাহায্যের জন্য এগিয়ে আসে তাদের জন্য এই শব্দটি একেবারে প্রযোজ্য।

কিন্তু হঠাৎ এই শব্দ নিয়ে কেন আলোচনা করা হচ্ছে? কারণ সম্প্রতি বিজ্ঞানীরা গবেষণা করে জানতে পেরেছেন যে, যেকোনো জন্তুরা একে অপরকে সাহায্য করে, আর সেই কারণ খুঁজতে গিয়ে উঠে এসেছে এই শব্দটি।

ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অফ বেঙ্গালুরু সেন্টার ফর ইকোলজিক্যাল সাইন্স থেকে রাঘবেন্দ্র গর্গোকর এই বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করেছেন। কেন জন্তুরা একে অপরের প্রতি সহনশীল, তা বিশ্লেষণ করতে গিয়ে তিনি এ কথার উল্লেখ করেছেন।

কিভাবে বিজ্ঞান আর বিজ্ঞানীরা এই রহস্য ভেদ করলেন এবার সেটা জানা যাক।

১৮৯২ সালে জন্মগ্রহণ করেছিলেন জন বারডন স্যানডারসন হ্যালডেন। প্রযোজন তথ্য নিয়ে রচিত একটি বইতে তিনি জ্ঞাতি অথবা আত্মীয় বেছে নেবার তত্ত্ব আলোচনা করেছিলেন। এই বইতে তিনি বলেছেন যে, কনফিউশন এর জিন নির্ভর ব্যাপার, এটি জন্তুদের ব্যবহারের ওপর তীব্র প্রভাব ফেলে।

জাতীয় নির্বাচনের ক্ষেত্রে এই শব্দটি বিশেষ ভূমিকা পালন করে। হ্যাল্ডেন বলেছেন যে, যদি তার দুই ভাই একসাথে কোথাও ডুবে যায়, তাহলে তিনি নিজের প্রাণের ঝুঁকি নিয়ে তাদের বাঁচাবেন। তবে যদি একজন ডুবে যায়, তাহলে হয়তো এই সিদ্ধান্ত তিনি নেবেন না।

জেনেটিক্সের বিবর্তনের ক্ষেত্রে আল্ট্রুইজম এর ভূমিকা নিয়ে ডোনাল্ড হ্যামিল্টন একটি তত্ত্ব খাড়া করেছিলেন ১৯৬৪ সালে। এই তত্ত্বের মধ্যে তিনি ইনক্লুসিভ ফিটনেস বলে একটি শব্দ ব্যবহার করেছিলেন। যার অর্থ হলো, এমন একটি জিনের মধ্যে থেকে অন্য জিনে সঞ্চারিত হয়ে যায়। এটি একটি আত্মীয় অন্য আত্মীয়দের মধ্যে ছড়িয়ে দিতে পারে। একে বলা হয় হ্যামলিটন রুল।

জেরাল্ড এস উইলকিনসন যিনি ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন অধ্যাপক, উনি কোস্টা রিকার বাদুড়দের উপরে একটি পরীক্ষা করেছিলেন। তিনি লক্ষ্য করে দেখেছেন যে, বাদুড় তাদের খাবারে ভাগ দিচ্ছে, যারা তাদের পূর্বে সাহায্য করেছিল। এই মুহূর্তে কাকেদের ওপর পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে গবেষণা করা হচ্ছে। খুব তাড়াতাড়ি সিদ্ধান্তে উপনীত হতে চলেছেন বিজ্ঞানী।