একজন প্রাপ্ত বয়স্ক মহিলা নিজের ইচ্ছে মত যার সাথে খুশি থাকতে পারেঃ দিল্লি হাইকোর্ট

9
একজন প্রাপ্ত বয়স্ক মহিলা নিজের ইচ্ছে মত যার সাথে খুশি থাকতে পারেঃ দিল্লি হাইকোর্ট

কিছুদিন আগেই সুলেখা ও বাবলু একে অপরকে ভালোবেসে বিয়ে করেছিল কিন্তু সেই বিয়ে মেনে নেয়নি মেয়ের পরিবার। তারা ঘোর আপত্তি জানিয়েছিল এবং সাথে বলেছিল তাদের মেয়ে নাবালিকা বাবলু তাকে অপহরণ করেছে। এর পরেই দিল্লি হাইকোর্টের দুইজন বিচারপতি রাজনিশ ভাটনাগর ও বিপিন সাঙ্গী কনফারেন্সের মাধ্যমে মেয়েটির সাথে কথা বলে। আর সেখানেই জানা যায় যে মেয়েটির বয়স কুড়ি বছর, এই কথা শোনার পর এই বিচারপতিরা জানায় মেয়েটি কখনোই নাবালিকা নন।

তারপরেই বিচারপতিরা জানায় একজন প্রাপ্ত বয়স্ক মহিলা নিজের ইচ্ছে মত যার সাথে খুশি থাকতেই পারে এতে তার পরিবার বাধা হয়ে দাঁড়াতে পারবেনা। এর পরেই বিচারপতির নির্দেশে পুলিশি নিরাপত্তায় সুলেখাকে তার স্বামী বাবলুর কাছে পৌঁছে দেওয়া হয়। বর্তমানে দেশে লাভ জিহাদ নিয়ে চর্চা তুঙ্গে, এর মধ্যেই বিচারপতিদের এই ধরনের সিদ্ধান্ত নজর কেড়েছে অনেকের।

শোনা যাচ্ছে এবার বিজেপি শাসিত রাজ্য গুলো আগামীতে এই লাভ জিহাদ বিরুদ্ধ আইন চালু করতে চলেছে, এর মধ্যেই দিল্লি হাইকোর্টের এমন রায় অনেকটাই তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করছে বিশেষজ্ঞদের মহল। আদালতের তরফ থেকে জানানো হয়েছে মেয়ের পরিবারকে পুলিশ বোঝাবে, তারা যেন তাদের মেয়ের জামাইকে হুমকি না দেয়, আইন যেন নিজেদের হাতে তুলে না নেয়। এটা অবশ্য নতুন কিছু নয় এর আগেও অনেক কয়েকটি জায়গায় এমন সব ঘটনা ঘটেছে যার মধ্যে উত্তর প্রদেশ অন্যতম।

গতবছর আগস্ট মাসে এক মুসলিম যুবক হিন্দু মেয়েকে বিয়ে করে, এরপর এই মেয়ের পরিবার সেই যুবকের বিরুদ্ধে মামলা করে হাইকোর্টে। কিন্তু এলাহাবাদ হাইকোর্ট সেই মামলা বাতিল করে দেয়। হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চে তরফ থেকে জানানো হয় কোনভাবেই ব্যক্তিস্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ করা যাবে না। এমনকি একে অপরের পছন্দ কেউ গুরুত্ব দিতে হবে, কারণ এটা একটা স্বাধীনতা।