করোনায় মৃত মাকে দুই দিন ধরে আঁকড়ে বসে রইল এক 18 মাসের শিশু

3
করোনায় মৃত মাকে দুই দিন ধরে আঁকড়ে বসে রইল এক 18 মাসের শিশু

দেশজুড়ে বর্তমানে লাগামছাড়া করুণা সংক্রমণ হয়ে গেছে। ইতিমধ্যেই আক্রান্তের সংখ্যা এবং একইসঙ্গে মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে চলেছে। অসহায় মানুষের আর্তি যেন আকাশে বাতাসে ভাসছে। মৃতদেহের সৎকারের ব্যবস্থা করা যাচ্ছেনা ঠিক মত। সংবাদমাধ্যম জুড়ে শুধুমাত্র করোনা আক্রান্তদের কষ্টের কথা। এর মাঝখানে এক যন্ত্রণার দৃশ্য ফুটে উঠল মহারাষ্ট্রের বুক থেকে। মায়ের মৃতদেহ কে জড়িয়ে ধরে বসে রয়েছি এক দুধের শিশু। দুই দিন ধরে তার পেটে এক ফোঁটা অন্ন পর্যন্ত যায়নি। করোনা সংক্রমনের ভয়ে কেউ তার পাশে আসতে ভয় পাচ্ছে। মৃতদেহের সৎকারের পর্যন্ত ব্যবস্থা করেনি কেউ। মহারাষ্ট্রের বুকে এমন একটি ঘটনা ঘটতে ঘটল রাজ্যবাসী।

শুনতে পাওয়া গেছে যে, গত শনিবার করোনাতে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছিল ওই মহিলার। তার দুইদিন আগে থেকে বাড়ি তেই বন্দি ছিলেন ওই মহিলা। মায়ের মৃত্যুর পর মাকে জড়িয়ে ধরে বসে ছিল 18 মাসের শিশুটি। তাকে খাবার দেওয়ার জন্য এগিয়ে আসেননি কেউ। শেষ পর্যন্ত মৃতদেহ থেকে দুর্গন্ধ বের হতে শুরু হলে আশে পাশের বাড়ির লোকেরা পুলিশকে খবর দেয়।

পুলিশ আসার পর ওই মৃতদেহ ময়নাতদন্তের জন্য নিয়ে যাওয়া হয়। শিশুটিকে উদ্ধার করা হয় সেখান থেকে। হাসপাতাল সূত্র থেকে জানা গেছে যে, শিশুটি মারাত্মক ভাবে দুর্বল ছিল প্রথমে। তার গায়ে জ্বর ছিল। তবে প্রাথমিক চিকিৎসার পর এখন খুবই ভালো আছে সে। তার করোনা রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে। পুলিশ ইন্সপেক্টর প্রকাশ যাদব এই প্রসঙ্গে জানিয়েছেন যে, মহিলা স্বামী কর্মসূত্রে উত্তরপ্রদেশে গিয়েছে বলে জানতে পারা গেছে। উনার ফিরে আসা পর্যন্ত আমাদের অপেক্ষা করতে হবে।

এদিকে মহিলার মৃতদেহ উদ্ধারের পর শিশুটিকে যত্ন করে দুধ পান করান মহিলা কনস্টেবল সুশীলা এবং রেখা। তারা জানিয়েছেন যে, তাদের বাড়িতে ওই সন্তান রয়েছে। ওইটুকু শিশুকে দেখতে পেয়ে প্রথমে তাদের নিজেদের সন্তানের কথা মনে পড়ে যায়। শিশুটিকে দুধ দিতেই সে নির্দ্বিধায় পান করতে শুরু করে। তার যে কতখানি খিদে পেয়েছিল সেটা বোঝা গেছে।