“আপনার প্রপিতামহের সমর্থনে ভারতের বহু জমি চীনের দখলে” রাহুল গান্ধীর বক্তব্যের পাল্টা জবাব দিলেন অমিত শাহ

4

আসন্ন একুশের বিধানসভা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে এ রাজ্যে যেমন বিজেপি তৃণমূলের মধ্যে সংঘাত বেঁধেছে, ঠিক তেমনি বিহার বিধানসভা নির্বাচন উপলক্ষে বিজেপি এবং কংগ্রেসের মধ্যে জোর রাজনৈতিক তরজা চলছে। সম্প্রতি কংগ্রেস দলনেতা রাহুল গান্ধী ভারতীয় ভূখণ্ডে চিনা আগ্রাসনের পরিপ্রেক্ষিতে ভারত সরকারের ভূমিকা নিয়ে সওয়াল করেন। রাহুল গান্ধীর বক্তব্যের পাল্টা দিলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ।

রাহুল গান্ধী লাদাখ সংঘাত সম্পর্কে কেন্দ্রের সমালোচনা করতে গিয়ে বলেছিলেন, কংগ্রেস যদি দেশের ক্ষমতায় থাকতো তাহলে চীন ভারতীয় ভূখণ্ডে প্রবেশ করার সাহস পেত না। তিনি দাবি করেছেন, কংগ্রেস ক্ষমতায় থাকলে ভারতের সীমান্ত থেকে চীনকে উৎখাত করতে মাত্র ১৫ মিনিট সময় লাগতো। রাহুলের এই বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর পাল্টা যুক্তি, “আপনার প্রপিতামহের সমর্থনে ভারতের বহু জমি চীনের দখলে চলে গেছে”।

অমিত শাহের বক্তব্য, ১৫ মিনিটে যদি চীনকে উৎখাত করার পরিকল্পনা থাকতো কংগ্রেসের, তাহলে ১৯৬২ সালেই তা বাস্তবায়িত করা যেত। তাহলে ভারতের হেক্টর-হেক্টর জমি আজ চীনের দখলে থাকত না। উল্লেখ্য, ১৯৬২ সালে দেশের প্রধানমন্ত্রী ছিলেন রাহুল গান্ধীর পূর্বপুরুষ জহরলাল নেহেরু। তাকে উদ্দেশ্য করেই কটাক্ষ করেছেন অমিত শাহ। অমিত শাহ জহরলাল নেহেরু অসম নীতির কড়া সমালোচনা করেছেন।

অমিত শাহের কড়া জবাব, তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী তো আকাশবাণীতে অসমকে বাই বাই বলে দিয়েছিলেন। তাহলে কংগ্রেস এখন কিভাবে বিজেপিকে এই নিয়ে পরামর্শ দিচ্ছে? এদিন সাক্ষাৎকার দিতে গিয়ে অমিত শাহ বিহার রেজিমেন্টের ১৬ জন শহীদ জওয়ানের প্রতি শ্রদ্ধাও জ্ঞাপন করেছেন। শহীদদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, চিনা আগ্রাসনের বিরুদ্ধে ভারতীয় ভূখণ্ড রক্ষা করতে গিয়ে যারা শহীদ হয়েছেন, ভারত তাদের সর্বদা মনে রাখবে।