প্রায় ১০ শতাংশ বেতন বাড়তে চলেছে সমস্ত বেতনভোগী কর্মচারীদের

10
প্রায় ১০ শতাংশ বেতন বাড়তে চলেছে সমস্ত বেতনভোগী কর্মচারীদের

দীর্ঘ দু বছর মহামারীতে দেশের সব কটি কর্মসংস্থাতেই যথেষ্ট ক্ষতি হয়ে গেছে। তাই সকল কর্মচারীর পক্ষেই চাপ এখন অনেক বেশি। আর এর মধ্যেই এক সস্তির খবর পাওয়া যাচ্ছে যে, উইলিস টাওয়ারস ওয়াটসন (ডব্লিউটিডব্লিউ) বেতন বাজেট পরিকল্পনা রিপোর্টে বলা হচ্ছে যে ২০২৩ সালে বেতন বাড়তে চলেছে ভারতের সমস্ত বেতনভোগী কর্মচারীর। এমন তথ্যই উঠে আসছে বলে জানা যাচ্ছে। প্রায় ১০ শতাংশ বেতন বাড়তে পারে বলে জানানো হচ্ছে। ২০২৩ সালের গড় বেতন বৃদ্ধি গত বছরের তুলনায় অনেকটাই বেশি হতে পারে। জানা যাচ্ছে, শ্রমের সীমাবদ্ধতা এবং মুদ্রাস্ফীতির উদ্বেগের কারণে ভারতের সংস্থাগুলির কর্মচারীদের গড় বেতন বৃদ্ধি পেতে পারে।

কোন কোন সংস্থা গুলোর বেতন বাড়তে পারে জেনে নেওয়া যাক।

ডব্লিউটিডব্লিউ এর রিপোর্ট অনুযায়ী জানা যাচ্ছে যে, আর্থিক পরিষেবা, ব্যাঙ্ক, প্রযুক্তি, মিডিয়া এবং গেমিং সংস্থাগুলির কর্মচারীদের বেতন ২০২৩ সালে সব চেয়ে বেশি বৃদ্ধি পাবে। ভারতের কর্পোরেট পরিকাঠামো যুক্ত সংস্থাগুলি বাজেট সংশোধন করছে। আর এর ফলেই বেতন বাড়তে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। দেখা যাচ্ছে, আর্থিক পরিষেবা এবং ব্যাঙ্কগুলির গড় বেতন সর্বোচ্চ ১০.৪ শতাংশ বৃদ্ধি পেতে পারে। প্রযুক্তি সংস্থাগুলির ১০.২ শতাংশ ও মিডিয়া এবং গেমিং সংস্থাগুলিতে কর্মচারীদের ১০ শতাংশ অবধি বেতন বৃদ্ধি হতে পারে বলে দাবি করেছে রিপোর্ট।

প্রতিবেদনে অনুযায়ী, এই বছর ভারতের অর্ধেকেরও বেশি অর্থাৎ প্রায় ৫৮ শতাংশ নিয়োগকর্তারা গত বছরের তুলনায় বেশি বেতন বৃদ্ধির জন্য বাজেট তৈরি করছে।

করোনার পর সকল কর্মীগণ আরো বেশি পরিমাণে কাজ করছে। বাজেট কমানোর যথেষ্ট চেষ্টা করছে বলে মনে করছে রিপোর্টে।
প্রতিবেদন অনুসারে, ভারতের প্রায় ৪২ শতাংশ সংস্থা এক বছরের মধ্যে অনেক বেশি আয়ের লক্ষ্য দেখা যাচ্ছে । আবার ৭.২ শতাংশ সংস্থার মতে চলতি বছরে তাদের সংস্থার আয় কমতে পারে।

ভারতে গড় বেতন প্রায় ১০ শতাংশ বৃদ্ধি পেলেও চিনে এই বছর সংস্থাগুলির গড় বেতন ৬ শতাংশ এবং হংকংয়ে ৪ শতাংশ এবং সিঙ্গাপুরে ৪ শতাংশ গড় বেতন বৃদ্ধি পাবে বলে মনে করা হচ্ছে।

তার পাশাপাশি ভারতে কর্মচারীদের স্বেচ্ছায় চাকরি ছাড়ার হারও ১৫.১ শতাংশের কাছাকাছি থাকবে।