আবারও অনিশ্চয়তার মুখে উচ্চ প্রাথমিক চাকরিপ্রার্থীদের ভবিষ্যৎ! দায়ের হল জনস্বার্থ মামলা

8
আবারও অনিশ্চয়তার মুখে উচ্চ প্রাথমিক চাকরিপ্রার্থীদের ভবিষ্যৎ! দায়ের হল জনস্বার্থ মামলা

উচ্চ প্রাথমিকে নিয়োগ নিয়ে দুর্নীতির জট যেন কিছুতেই কাটতে চাইছে না। হাইকোর্টের তরফ থেকে নতুনভাবে মেধাতালিকা প্রকাশ করে নতুনভাবে নিয়োগ প্রক্রিয়া চালানোর নির্দেশ দেওয়ার পরে যে মেধা তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে তাকে কেন্দ্র করেও প্রশ্ন উঠেছে চাকরিপ্রার্থীদের মনে। ফের অনিয়ম এবং দুর্নীতির অভিযোগ তুলে হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছেন চাকরিপ্রার্থীরা। হাইকোর্টের পরবর্তী নির্দেশ ছাড়া প্রাথমিকে নিয়োগ প্রক্রিয়ার উপর স্থগিতাদেশ দিয়েছে হাইকোর্ট। সব মিলিয়ে

এবার এই মামলা নতুন মোড় নিতে চলেছে। উচ্চ প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগ সংক্রান্ত মামলা নিষ্পত্তির জন্য এবার সিবিআই তদন্ত চেয়ে মামলা হল আদালতে। উলুবেড়িয়ার বাসিন্দা সুব্রত মণ্ডল এই মর্মে হাইকোর্টে একটি জনস্বার্থ মামলা দায়ের করেছেন। সিবিআই বা সিআইডি অফিসারদের নিয়ে স্পেশাল ইনভেস্টিগেশন টিম(SIT) গঠন করে এই মামলার তদন্ত চালানোর আবেদন রাখা হয়েছে উক্ত আবেদনে।

হাইকোর্টের বিচারপতি সুব্রত তালুকদার ও বিচারপতি সৌগত ভট্টাচার্যের ডিভিশন বেঞ্চে উঠেছে এই মামলা। এদিকে নিয়োগ-প্রক্রিয়া চালানোর পাশাপাশি চূড়ান্ত নিয়োগ তালিকা প্রস্তুত করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে আদালতে। তবে আদালতের নির্দেশ ছাড়া নিয়োগ করা যাবে না বলেও জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। রাজ্যের অ্যাডভোকেট জেনারেল কিশোর দত্তের থেকে জানা গেল ১৯শে জুলাই পর্যন্ত কমিশনের কাছে ৮৫০০টি অভিযোগ এসে জমা পড়েছে।

জনস্বার্থ মামলাকারীর তরফের আইনজীবী শুভ্রাংশু পান্ডে জানিয়েছেন, প্রথমবার নিয়োগ প্রক্রিয়া ক্ষেত্রে অনিয়মের অভিযোগ তোলা হয়েছিল এবং সেই অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে দ্বিতীয়বার নিয়োগের নির্দেশ দেয় আদালত। এখন যেহেতু দ্বিতীয় বারেও নিয়োগের ক্ষেত্রে দুর্নীতির অভিযোগ উঠছে, সে ক্ষেত্রে চাকরি সংক্রান্ত মামলায় জনস্বার্থ মামলা দায়ের করা যেতেই পারে। নিয়োগ প্রক্রিয়ায় দুর্নীতিসংক্রান্ত যথোপযুক্ত তথ্য-প্রমাণ মামলাকারীদের তরফ থেকে কোর্টে পেশ করা হবে বলে জানানো হয়েছে। ১৪৩৩৯ জন চাকরিপ্রার্থী ভবিষ্যৎ আবারও অনিশ্চয়তার মুখে।