দফায় দফায় জিজ্ঞাসাবাদের পরে লাদাখের ধৃত চীনে জওয়ানকে ফিরিয়ে দিল ভারত

5
দফায় দফায় জিজ্ঞাসাবাদের পরে লাদাখের ধৃত চীনে জওয়ানকে ফিরিয়ে দিল ভারত

সমস্ত জল্পনার অবসান ঘটিয়ে অবশেষে ঘরের ছেলেকে ঘরেই ফেরালো ভারত। লাদাখের ডেমচক এলাকা থেকে ধৃত চীনে জওয়ান কর্পোরাল ওয়াং ইয়া লিংকে চীনের সেনাবাহিনীর হাতে তুলে দেওয়া হল। সোমবার বেলার দিকে ভারত-চীন প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা পেরিয়ে ভারতীয় ভূখণ্ডে প্রবেশ করেছিলেন ওই চীনে জওয়ান। ঘটনাটি নজরে আসতেই ভারতীয় সেনাবাহিনী তাকে নিজেদের হেফাজতে নেয়।

চীনের পিপলস লিবারেশন আর্মির সদস্য কর্পোরাল ওয়াং ইয়া লিং ভারতীয় সেনাবাহিনীকে জানান, চমরি গাই চড়াতে গিয়ে ভুলবশত সীমানা পেরিয়ে এসেছেন তিনি। তার কোনো অসৎ উদ্দেশ্য নেই। তিনি নিজেকে নিরস্ত্র বলেও দাবি করেন। হেফাজতে নেওয়ার পর নানাভাবে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে থাকে ভারতীয় সেনাবাহিনী। চীনে ভাষা বিশেষজ্ঞরা তাকে দফায় দফায় জিজ্ঞাসাবাদ করেন।

তবে হেফাজতে নিলেও তার সঙ্গে কোনো খারাপ আচরণ করেনি ভারতীয় সেনা। লাদাখের চরম শীতের মোকাবিলা করার জন্য তাকে প্রয়োজনীয় গরম বস্ত্র, খাবার-দাবার এবং অক্সিজেন প্রদান করা হয়। চীনের ষষ্ঠ মোটরাইজড ডিভিশনের সৈনিক ওই ব্যক্তি নিজেকে নির্দোষ বলেই দাবি করেন। তবে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর সন্দেহ ছিল, ভারতীয় সেনার উপর নজরদারি চালানোর উদ্দেশ্যেই হয়তো ভারতীয় ভূখণ্ডে প্রবেশ করেছে সে।

উল্লেখ্য, সোমবারেই চীনের পিপলস লিবারেশন আর্মি তরফ থেকে ভারতের কাছে একটি আবেদন করে জানানো হয়, তাদের এক সৈনিক নিখোঁজ। তার সম্বন্ধে ভারতের কাছে যদি কোনো খবর থাকে, তাহলে যেন তা জানানো হয়। এর পরিপ্রেক্ষিতে ভারতের তরফ থেকে জানানো হয়, ওই ব্যক্তি যদি সত্যিই ভুলবশত ভারতীয় ভূখণ্ডে প্রবেশ করে থাকেন, তাহলে তাকে চীনে ফেরত পাঠানো হবে। নতুবা তার বিরুদ্ধে নজরদারির অভিযোগ প্রমাণিত হলে উপযুক্ত ব্যবস্থা গ্রহণ করবে ভারত। অবশেষে, তাকে ফেরানোর সিদ্ধান্তই নেওয়া হলো।