দীর্ঘ প্রায় ৩২ বছর পর জন্মাষ্টমী উপলক্ষে প্রভাতফেরি বের করা হল কাশ্মীরের হান্ডওয়ারায়

14
দীর্ঘ প্রায় ৩২ বছর পর জন্মাষ্টমী উপলক্ষে প্রভাতফেরি বের করা হল কাশ্মীরের হান্ডওয়ারায়

গতকাল দেশ জুড়ে পালিত হয়েছে জন্মাষ্টমী উৎসব। এই বিশেষ দিন কার্যত সনাতন ধর্মে বিশ্বাসীদের কাছে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। শ্রীকৃষ্ণের জন্ম জয়ন্তী উৎসব উপলক্ষে আসমুদ্রহিমাচল কৃষ্ণের আরাধনায় মেতে উঠেছে। বাদ গেলেন না কাশ্মীরি পন্ডিতরাও। দীর্ঘ প্রায় ৩২ বছর পর উত্তর কাশ্মীরের হান্ডওয়ারায় জন্মাষ্টমী উপলক্ষে প্রভাতফেরি বের করা হয়েছিল। শ্রীকৃষ্ণের জন্ম জয়ন্তীতে ভগবান শ্রীকৃষ্ণের কাছে দেশকে করোনামুক্ত করার প্রার্থনা জানিয়েছেন পণ্ডিতরা।

১৯৮৯ সাল পর্যন্ত কাশ্মীর জন্মাষ্টমীর অনুষ্ঠান আয়োজিত হয়ে এসেছে। তবে তারপরে মাঝে ৩২ বছরের দীর্ঘ প্রতীক্ষার পর আবার জন্মাষ্টমী উপলক্ষে প্রভাতফেরী বেরোলো কাশ্মীরের পথে। গণপথ্যর মণ্ডির থেকে প্রভাতফেরী বেরিয়ে জেন্দার মহল্লা, জাহাঙ্গীর চক, মৌলানা আজাদ রোড হয়ে রেসিডেন্সি রোডে পৌঁছায়। এই অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণকারী কাশ্মীরি পন্ডিতরাও জন্মাষ্টমী উপলক্ষে অনুষ্ঠান পালন করতে পেরে আপ্লুত হয়ে পড়েছেন।

তারা জানাচ্ছেন কাশ্মীর ভাতৃত্ববোধ জাগায়। দেশ-বিদেশের মানুষ এখানে এসে কাশ্মীরকে একতার নজরে দেখেন। প্রভাতফেরী বের করতে সাহায্য করার জন্য স্থানীয় মানুষদের ধন্যবাদ জানিয়েছেন কাশ্মীরি পন্ডিতরা। শ্রীকৃষ্ণের জন্ম জয়ন্তী উপলক্ষে প্রভাত ফেরীর বের করার আগে কড়া সুরক্ষার ব্যবস্থা করা হয়েছিল। স্থানীয়রা জায়গায় জায়গায় বেরিয়ে এসে শ্রীকৃষ্ণের প্রভাতফেরীকে স্বাগত জানিয়েছেন। কৃষ্ণভক্তরা প্রভাতফেরীতে বেরিয়ে ‘হরে কৃষ্ণ’ গানের তালে নেচে ওঠেন।