সাত বছর কলকাতার বাসিন্দা হয়েও টিকা পেলেন না এক পাকিস্তানি মহিলা

21
সাত বছর কলকাতার বাসিন্দা হয়েও টিকা পেলেন না এক পাকিস্তানি মহিলা

সাত বছর কলকাতার বাসিন্দা হয়েও টিকা পেলেন না এই পাকিস্তানি মহিলা। ভারতীয় নথি নেই, এই অভিযোগে এই মহিলাকে টিকা না দিয়েই ফেরাল কলকাতার মেডিকা হাসপাতাল।

বছর ৩০-এর পাকিস্তানি শাহার কাইজার পাসপোর্ট ছিল, সেই নথি দেখিয়েই কো-উইন অ্যাপে টিকার জন্য স্লট বুক করেছিলেন । কিন্তু দড়ি টানাটানির মধ্যে পড়ে টিকা নেওয়া হল না তাঁর। অথচ শাহার কোনও অবৈধ বাসিন্দা নন।

তিনি বিবাহসূত্রেই সাত বছর ধরে এই শহরে আছেন। শুক্রবার বিকেল তিনটে থেকে চারটের স্লট বুকিং করেন শাহার।

হাসপাতালে গেলে প্রথমে নিয়ম অনুযায়ী কোউইনের স্লট বুকিং দেখে টাকা জমা নেওয়া হয়। স্পুটনিক-ভি টিকা দেওয়া হবে বলেও জানানো হয়। এরপরে একজন কর্মী তাঁদের বলেন, “অপেক্ষা করতে হবে। আমরা উচ্চ কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলছি।”

আরও প্রায় দেড় দুই ঘন্টা বসে থাকার পর তাদের বলা হয় যে স্বাস্থ্য ভবনের নির্দেশ নেই, ফলে টিকা দেওয়া যাবে না। শাহার বলেন, যখন রেজিস্ট্রেশন করতে হয় তখন সেখানে ভ্যালিড ডকুমেন্ট হিসেবে পাসপোর্টের উল্লেখ আছে। অন্য কোনও দেশের পাসপোর্ট বৈধ নয় সে বিষয়ে কোনও উল্লেখ নেই।

এদিকে মেডিকা হাসপাতাল থেকে ফিরে আসার পরই তাঁর কাছে মেসেজ আসে যে, তিনি টিকা নিতে অসম্মত হন তাই টিকা গ্রহণ সম্পন্ন হয়নি। বাড়ি ফিরে এসে স্বাস্থ্য ভবনে ফোন করলে তাঁকে জানানো হয়, বেসরকারি হাসপাতালে কোনও সমস্যা হবে না পয়সা দিয়ে টিকা নেওয়া হচ্ছে। ফলে তারা (মেডিকা) টিকা দিতে বাধ্য।