ভারতের পর এবার বাংলাদেশও বন্ধ করে দিল চীনা অ্যাপ্লিকেশন

27
ভারতের পর এবার বাংলাদেশও বন্ধ করে দিল চীনা অ্যাপ্লিকেশন

লাদাখে ভারত-চীন সীমান্ত বিতর্ক ঘোরতর হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই চীনের বিরুদ্ধে বড়োসড়ো পদক্ষেপ গ্রহণ করেছিল ভারতবর্ষ। ডিজিটাল স্ট্রাইকের ধাক্কায় এক নিমেষে চীনের বেশ কিছু মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন ভারতে ব্যান করে দেওয়া হয়। গ্রাহকদের সুরক্ষার সঙ্গে আপস করছিল ওই চিনে অ্যাপ্লিকেশনগুলি। যে কারণে অ্যাপ্লিকেশনগুলিকে ভারতের মাটিতে ব্যান করে দেওয়া হয়েছিল। ভারতের দেখাদেখি বিদেশের বেশ কয়েকটি দেশও একই পথে হেটে টিকটক পাবজিসহ বেশকিছু চিনে অ্যাপ্লিকেশন ব্যান করে দেয়। এবার সেই পথে হাঁটলো বাংলাদেশ।

ভারতের দেখাদেখি পাবজি এবং টিকটকসহ বেশ কিছু চিনে অ্যাপ্লিকেশন ব্যান করে দিয়েছে বাংলাদেশ। যার ফলে বাংলাদেশের বাজারেও বড়সড় ধাক্কা খেলো চীন। বিশিষ্ট সংবাদ মাধ্যম সূত্রে খবর বাংলাদেশের আদালত সমস্ত ক্ষতিকারক গেমিং অ্যাপ এবং ভিডিও প্রস্তুতকারক অ্যাপ্লিকেশনগুলিকে ব্যান করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। যার মধ্যে রয়েছে ভিগো লাইভ, টিকটক, পাবজি, ফ্রী-ফায়ার, লাইকির মতো চাইনিজ এপ্লিকেশন, যেগুলি অবিলম্বে ব্যান করার নির্দেশ দিয়েছে বাংলাদেশের আদালত।

বাংলাদেশের ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার জানিয়েছেন অনলাইন গেমিং অ্যাপ্লিকেশনগুলিকে ব্যান করে দেওয়ার জন্য বিশেষ কমিটি গঠন করা হয়েছে। পাবজি এবং টিকটকের মত অ্যাপ্লিকেশনগুলি ছোট ছোট ছেলেমেয়েদের পড়াশোনার ক্ষতি করছে। এই অ্যাপ্লিকেশনগুলি তাদের মনে নেশার মতো কাজ করছে। যার জন্য ছোট ছেলেমেয়েদের স্বার্থের কথা ভেবে বাংলাদেশের আদালত এই অ্যাপ্লিকেশনগুলিকে ব্যান করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

বিটিআরসি’র ভাইস চেয়ারম্যান সুব্রত রায় মৈত্র জানিয়েছেন এই অ্যাপ্লিকেশনগুলির লিংক ইতিমধ্যেই বাতিল করে দেওয়া হয়েছে। তবে অ্যাপ্লিকেশন এর লিঙ্ক বাতিল হলেও ভিপিএন দিয়ে অ্যাপ্লিকেশনগুলোকে চালানো যায়। তার জন্য অ্যাপ্লিকেশনের কতৃপক্ষকে সরাসরি চিঠি প্রদান করা হবে। ভারতে চিনা অ্যাপ্লিকেশন বাতিল হয়ে যাওয়াতে চীনের ব্যবসা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল। এবার বাংলাদেশের থেকেও একইভাবে ব্যবসায় বড়সড় ধাক্কা খেতে চলেছে চীন।