একমাস পরে দলের কোনো অস্তিত্বই থাকবে না! ফের তৃণমূল সরকারকে কটাক্ষ করলেন দিলীপ ঘোষ

9
একমাস পরে দলের কোনো অস্তিত্বই থাকবে না! ফের তৃণমূল সরকারকে কটাক্ষ করলেন দিলীপ ঘোষ

শুভেন্দু অধিকারীর পদত্যাগ ঘিরে তৃণমূল সরকারকে কটাক্ষ করতে ছাড়ছে না বিজেপি। বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ নিয়মমাফিক শনিবার সকালে প্রাতঃভ্রমণে বেরিয়ে তৃণমূলের বিরুদ্ধে সওয়াল করতে শুরু করলেন। রাজ্য সরকারের প্রতি বিজেপির রাজ্য সভাপতির হুঁশিয়ারি, যে দলের এমএলএ, এমপি দল ছেড়ে বেরিয়ে যায়, একমাস পরে সেই দলের কোনো অস্তিত্বই থাকবে না!

উল্লেখ্য, সম্প্রতি মিহির গোস্বামী তৃণমূল ছেড়ে বিজেপি দলে যোগদান করেছেন। এ প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে দিলীপবাবু বলেছেন, এ তো সবে শুরু। বিরোধীদলের আরো অনেক এমএলএ, এমপি রয়েছেন যারা ভবিষ্যতে দলে দলে বিজেপিতে যোগদান করবেন। এক মাসের মধ্যেই বিজেপি সদস্য সংখ্যা আরো বাড়বে বলেই দাবি করছেন দিলীপ ঘোষ।

উল্লেখ্য, মমতা ঘনিষ্ঠ শুভেন্দু অধিকারীর পদত্যাগের পর শুক্রবার বিকেলেই তৃণমূল দলের শীর্ষ নেতৃত্বদের নিয়ে বৈঠকে বসেন মুখ্যমন্ত্রী। এ সম্পর্কে কটাক্ষ করে দিলীপ ঘোষ বলেছেন, তৃণমূল দলের অভ্যন্তরে রীতিমতো “ডিজাস্টার” শুরু হয়ে গিয়েছে। মুখ্যমন্ত্রী এখন সেই ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট নিয়েই ব্যস্ত। যার জন্যেই এই মিটিং চলছে। দিলীপ ঘোষের বক্তব্য, তৃণমূলের তরফ থেকে এখন প্রায়ই এই ধরনের ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট মিটিং চলবে। হয়তো বা সেটা প্রতিদিনও হতে পারে।

শুভেন্দু অধিকারী রাজ্যের মন্ত্রিসভার সেচ, পরিবহন এবং জলসম্পদ দপ্তরের দায়িত্বে ছিলেন। তার পদত্যাগের পর এই তিন ক্ষেত্র মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অধীনে এসেছে। এ প্রসঙ্গে মুখ্যমন্ত্রীকে কটাক্ষ করে দিলীপ ঘোষের বক্তব্য, উনি সব কিছু নিজের দায়িত্বেই রাখেন। শুধু তৃণমূল পার্টিটাকেই নিজের দায়িত্বে রাখতে পারেন না।