লকডাউনের মাঝেই খুব কাছের মানুষকে হারালেন অভিনেত্রী তিয়াসা রায়

33
লকডাউনের মাঝেই খুব কাছের মানুষকে হারালেন অভিনেত্রী তিয়াসা রায়

আমরা যারা প্রত্যেক সময় পর্দায় অভিনয় করতে দেখছি যাদের, মাঝে মাঝে ভুলে যাই তারাও একজন মানুষ। তাদের পরিবার আছে তাদের কষ্ট আছে, দুঃখ আছে, আনন্দ আছে। গত বছর থেকে বিনোদন জগতের কেউ না কেউ মহামারীতে আক্রান্ত হচ্ছেন এবং মারা যাচ্ছেন। বলিউড-টলিউড জুড়ে গতবছর বহু অভিনেতা অভিনেত্রীরা মারা গেছেন। স্বাভাবিকভাবেই তাদের মধ্যে একটি দুশ্চিন্তা কাজ করে।

এই লকডাউনের মাঝখানে এবারে পরিবারের খুব কাছের মানুষকে হারালেন তিয়াসা রায় ওরফে শ্যামা। অভিনেত্রী তার একমাত্র দাদুকে হারালেন। গোবরডাঙ্গা অঞ্চলে অভিনেত্রীর মামার বাড়ি। মাঝে মাঝে তিনি ছুটে যেতেন সেখানে। এবারে সংবাদ পেয়ে গ্রামের বাড়িতে ছুটে চলে যান তিনি।

অসময়ে মামার বাড়ির সকলের পাশে থাকার চেষ্টা করেন অভিনেত্রী। অভিনেত্রীর শৈশব বেশিরভাগ কেটেছে মামার বাড়িতেই। তাই মামার বাড়ির সকলে তার খুব প্রিয় মানুষ। আর সব থেকে প্রিয় মানুষ ছিলেন দাদু। বাবার মতো তাদের কেউ শ্রদ্ধা করতেন তিনি। এইভাবে প্রিয় মানুষটি জীবন থেকে চলে যাওয়া কিছুতেই মেনে নিতে পারছেন না অভিনেত্রী।

তবে ধারাবাহিক আপাতত বন্ধ থাকায় এবং প্রিয়জনদের মাঝে কিছুটা সময় কাটাতে পারার ফলে কিছুটা শান্তিতে রয়েছেন অভিনেত্রী। সম্প্রতি গ্রামের বাড়িতে তিনি দাদুর জন্মদিন উদযাপন করেছিলেন। ভাই বোনেরা মিলে ঘরোয়া আয়োজন করেছিলেন। আর কিছুদিনের মধ্যেই চিরতরে হারিয়ে গেলেন তার দাদু।

কিন্তু এই কঠিন পরিস্থিতিতে অনুরাগীদের মন শক্ত করার বার্তা দিলেন তিনি। বাড়িতে থাকার পরামর্শ দিলেন অভিনেত্রী। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা যাতে পারে সেই সমস্ত খাওয়া-দাওয়া করা পরামর্শ দিলেন তিনি। সাথে বললেন, প্রিয়জনদের সঙ্গে সময় কাটান তাদের মন ভালো করার চেষ্টা করুন।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, লকডাউন হওয়ার পর শুটিং পুরোপুরি বন্ধ হয়ে যায়। এই সপ্তাহের কয়েকটা দিন নতুন এপিসোড দেখতে পাবেন দর্শক। তারপর যদি লকডাউন আরো বাড়তে থাকে, তাহলে পুরোনো এপিসোড দেখে মন ভারতে হবে আমাদের।