বিয়ে না করেও বিবাহিতার তকমা পেয়েছিলেন অভিনেত্রী পায়েল দে! জানুন কারন

10
বিয়ে না করেও বিবাহিতার তকমা পেয়েছিলেন অভিনেত্রী পায়েল দে! জানুন কারন

বাংলা ধারাবাহিক দুর্গা এবং বেহুলা র হাত ধরে খ্যাতির শিরোনামে পৌঁছে গিয়েছিলেন বাংলা ধারাবাহিকের অন্যতম অভিনেত্রী পায়েল দে। সম্প্রতি তিনি স্টার জলসায় দেশের মাটি ধারাবাহিকে অভিনয় করছেন। অবশ্য অভিনয় জীবনের গোড়ার দিকে সাহিত্যের সেরা সময় বলে একটি ধারাবাহিকে অভিনয় করেছিলেন তিনি। বিজ্ঞাপনের দুনিয়া থেকে প্রবেশ করেছিলেন ধারাবাহিকে দুনিয়াতে। পায়েলের কিছু সত্য ঘটনা তুলে ধরলেন আর্ট দিরেক্টর তরুণ কান্তি বারিক।

সোশ্যাল মিডিয়ায় লিখে ফেললেন, অবিবাহিতা পায়েলের বিবাহিত হওয়ার একটি কাহিনী। বরাবরই সুন্দর দেখতে পায়েলের গোলমুখ, পদ্মের মতো চোখ, এক ঢাল চুল রয়েছে। দেখলে যেন মনে হয় লক্ষ্মী প্রতিমা। তিনি সদ্য বিজ্ঞাপনের জন্য কাজ করতে শুরু করেছিলেন। এদিকে বেনারসি বিজ্ঞাপনের জন্য নতুন একটি মুখ খুঁজে চলেছে কম্পানি।

এই দোকানের প্রথম মুখ ছিলেন মৈত্রী। এবার নতুন মুখের সন্ধানে খোঁজ করতে গিয়ে পাওয়া গেল পায়েলকে। মৈত্রী চোখের সেই ভাষা এবং এক্সপ্রেশন সব কিছুই খুঁজে পাওয়া গেল পায়েল এর মধ্যে। তার ভয় ছিল নতুন বিজ্ঞাপন পুরনো বিজ্ঞাপন কে ছাপিয়ে নাও যেতে পারে। এক্ষেত্রে সমূহ ক্ষতি হবে আমাদের।

কিন্তু যা কোনদিন চিন্তাভাবনা করা হয়নি সেটাই হলো অবশেষে। পায়েল নতুন মুখ হবার পর কাতারে কাতারে লোক আসে পায়েলের খোঁজ করতে। কেউ তাকে বিয়ে করতে চান কেউবা আবার ছেলের বউ বানাতে চান তাকে। একবার তো একজন সুপুরুষ তার মায়ের সঙ্গে সোজাসুজি বিয়ের প্রস্তাব নিয়ে চলে এসেছিলেন দোকানে। সেদিন বাধ্য হয়ে বলতে হয়েছিল পায়েলের বিয়ে হয়ে গেছে।

সে দিনের পুরনো স্মৃতি রোমন্থন করে তরুণ কান্তি বারিক স্বীকার করেন, একজন আর্ট ডিরেক্টর হিসেবে আমার পাওনা শুধু এইটুকুই যে, আমি সেইদিন সঠিক মডেল নির্বাচন করতে পেরেছিলাম। আজ অভিনেত্রী পায়েল সত্যি সত্যি বিবাহিতা। স্বামীর সঙ্গে সুখে ঘর সংসার করছেন তিনি। আগের মতো এখনো তাকে দেখলে মন ভরে যায় সকলের।