নতুন নির্দেশ অনুযায়ী, মেট্রো পরিষেবা পাওয়ার জন্য স্মার্ট কার্ড থাকা বাধ্যতামূলক

6
নতুন নির্দেশ অনুযায়ী, মেট্রো পরিষেবা পাওয়ার জন্য স্মার্ট কার্ড থাকা বাধ্যতামূলক

প্রায় ছয় মাস পরে, আনলক পর্বে ১৪ই সেপ্টেম্বর থেকে রাজ্যে মেট্রো রেল চলাচল করতে শুরু করবে। করোনার কারণে, মেট্রো পরিষেবা সংক্রান্ত সমস্ত পুরোনো নিয়ম বদলে যাচ্ছে। তাই নতুন ভাবে মেট্রো পরিষেবা শুরু করতে স্টেশনে স্টেশনে প্রস্তুতি তুঙ্গে। করোনাকালে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে কিভাবে যাত্রী নিয়ে মেট্রো রেল চলাচল করবে সে প্রসঙ্গে রাজ্যের সাথে দফায় দফায় আলোচনায় বসছে মেট্রো রেল কর্তৃপক্ষ।

সম্প্রতি মেট্রো কর্তৃপক্ষের তরফ থেকে জানানো হলো, মেট্রোর তরফ থেকে একটি বিশেষ অ্যাপ লঞ্চ করা হয়েছে। গুগল প্লে স্টোর থেকেই যাত্রীরা অ্যাপটি ডাউনলোড করতে পারবেন। এই অ্যাপের মাধ্যমে আগে থেকেই যাত্রীরা মেট্রোর টিকিট বুক করতে পারবেন। টিকিট বুকিংয়ের পর অটোমেটিক্যালি একটি ই-পাস জেনারেট হবে। স্টেশনে কর্মরত আরপিএফদের সেটি দেখালেই ট্রেনে চড়ার অনুমতি মিলবে।

উল্লেখ্য, এর আগে মেট্রো তরফ থেকে জানানো হয়েছিল, মেট্রো পরিষেবা পাওয়ার জন্য স্মার্ট কার্ড থাকা বাধ্যতামূলক। তবে নতুন সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, স্মার্ট কার্ড না থাকলেও অনলাইনে আগে থেকে টিকিট বুক করে মেট্রোয় সফর করতে পারবেন যাত্রীরা। তবে স্টেশনে ঢোকার ৪ থেকে ৬ ঘণ্টা আগে টিকিট বুক করতে হবে। তাহলে নির্ধারিত সময়ে আগেই ই-পাস জেনারেট হবে। একবার ই-পাস জেনারেট হলে স্টেশনে ঢুকে স্মার্ট কার্ড কিনতে পারবেন যাত্রীরা।

এই প্রক্রিয়া সম্পর্কে বিশদে যা জানা গেল, যাত্রীদের প্রথমে অ্যাপ ডাউনলোড করে তা খোলার পর কোন স্টেশন থেকে মেট্রোয় উঠতে চান এবং কোন স্টেশনে নামতে চান, তা উল্লেখ করতে হবে। এরপর মেট্রো তরফ থেকে আগামী এক ঘন্টায় সংশ্লিষ্ট রুটে কতগুলি মেট্রো রয়েছে এবং তার মধ্যে কটা করে সিট রয়েছে, তা জানিয়ে দেওয়া হবে। যাত্রীরা নিজেদের পছন্দমতো মেট্রোর সিট বুক করতে পারবেন। অর্থাৎ, সিট ফাঁকা থাকলে তবেই ই-পাস জেনারেট হবে। নতুবা যাত্রীকে অপেক্ষা করতে হবে।