পুলিশের পোশাক পড়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় ছবি শেয়ার করে বিপাকে পড়লেন এক তরুণী

12
পুলিশের পোশাক পড়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় ছবি শেয়ার করে বিপাকে পড়লেন এক তরুণী

দেশকে রক্ষা করার ক্ষেত্রে পুলিশের অবদান অনেক উঁচুতে, যে মানুষ এই কর্মক্ষেত্রে প্রবেশ করেন সে গোটা দেশকে রক্ষা করার দায়িত্ব নিজের কাঁধে নিয়ে থাকেন। এই কর্মক্ষেত্রে প্রবেশ করার পর একটা মানুষ যখন পুলিশের পোশাক গায়ে ধারণ করে তখনই যেন তার শক্তি আরো দ্বিগুন বেড়ে যায়, সেই কর্মক্ষেত্র এবং সেই পোশাকের দায়িত্ব বহন করতে হয় একটা মানুষকে। পুলিশের পোশাক নিয়ে নানান জায়গায় নানান রকম কেচ্ছার কথা আমরা শুনে থাকি, কোথাও না কোথাও মনে হয় যে এই পুলিশের পোশাকটার দায়িত্ব হয়তো আমরা বুঝিনা, যে কেউ পড়ে এটাকে নিয়ে খেলা করতে পারে কিন্তু এই পোষাকটা যে কতটা মূল্য এবং কতটা দায়িত্ব সেটা হয়তো আমাদের মত সাধারন মানুষেরা বুঝতে পারিনা।

সোশ্যাল মিডিয়ায় সুলগ্না ঘোষ নামে এক তরুনীর বিরুদ্ধে উঠল অভিযোগ, এই তরুণী পুলিশের পোশাক পড়ে ছবি দিয়েছেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। যার পরেই কলকাতা পুলিশের সাইবারক্রাইমের বিভাগে ওই তরুণীর নামে করা হয়েছে অভিযোগ দায়ের। খবর সূত্রে জানা গেছে যে, সুলগ্নার পরিচিতি এই অভিযোগ করেছেন সাইবারক্রাইমের কাছে।

অভিযোগ করা হয়েছে যে, যেন এই বিষয়ে তরুনীর বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেওয়া হয়। ওই তরুণীর বিরুদ্ধে অভিযোগ করা হয়েছে যে, সে নিজের প্রোফাইলে কখনো সার্জেন্টের পোশাক পরে আবার কখনো সাব-ইন্সপেক্টরের পোশাক পরে ছবি পোস্ট করেন। তরুণী তার প্রোফাইলে কলকাতা পুলিশের এক উচ্চপদস্থ কর্তার ছবি দিয়ে সেখানে বাপি বলে ক্যাপশন দিয়েছিলেন।

সেই তরুণী দাবি করেছেন যে, তার পরিবারের অনেকেই পুলিশে চাকরি করেন। অভিযোগ করা হয়েছে যে, ওই তরুণী পুলিশের সম্পর্কে নানান ভুয়ো খবর সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করছে। সুলগ্না ঘোষের বাড়ি যাদবপুর এলাকায়। এই অভিযোগ ওঠার পর এই সুলগ্না অস্বীকার করেছে এই অভিযোগ, তিনি দাবি করেছেন যে, তিনি এই পোশাক ভাড়া করেছিলেন এবং তারপরেই পড়ে তিনি ছবি তুলেছিলেন এবং সেটা আপলোড করেছিলেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। সুলগ্না দাবি করেছেন যে, আইনের বিরুদ্ধে গিয়ে তিনি কোনো রকমের কাজ করেননি। কিন্তু এই সার্জেন্ট এবং সাব-ইন্সপেক্টর এর পোশাক এই তরুণী পেল কোথা থেকে? আপাতত এই প্রশ্নের উত্তরে কোন জবাব দিতে পারেনি তরুণী। খবর সূত্রে জানা গেছে যে এর মধ্যে প্রোফাইল থেকে নিজের সমস্ত ছবি ডিলিট করে দিয়েছেন তরুণী।

Women allegedly posted picture as Kolkata Cop