অনলাইনে পুরনো ফ্রিজ কিনে ৯৬ লক্ষ টাকা পেলেন এক যুবক

52
অনলাইনে পুরনো ফ্রিজ কিনে ৯৬ লক্ষ টাকা পেলেন এক যুবক

পুরনো ফ্রিজ কেনা অনেক সময় সাশ্রয়কারী হয় ঠিকই। কম দামের মধ্যে ফ্রিজ কেনার পরিকল্পনা থাকলে অনেকেই পুরনো বা সেকেন্ড হ্যান্ডের দিকেই ঝোঁকেন। এতে অবশ্য লাভ এবং লোকসান হওয়ার সম্ভাবনা ৫০-৫০। তবে অনেক সময় দেখা গিয়েছে যে পুরনো জিনিস কিনেও বহুদিন কাজ চালানো যায়। তবে পুরনো ফ্রিজ কিনে এর আগে কেউ কখনো গুপ্তধনের সন্ধান পেয়েছেন কি? দক্ষিণ কোরিয়ার এক যুবক কিন্তু পেয়েছেন সেই সন্ধান।

দক্ষিণ কোরিয়ার ওই যুবক পুরনো ফ্রিজ কেনার জন্য একটি অনলাইন বিপণন সংস্থায় পছন্দসই ফ্রিজের সন্ধান করেছিলেন। সেখানেই একটি ফ্রিজ তার পছন্দ হয়ে যায় এবং তিনি ফ্রিজটি কিনে নেন। এরপর যখন ডেলিভারি হয় তখন ফ্রিজ খুলে ফ্রিজের ভেতরটা দেখেই রীতিমতো চমকে ওঠেন তিনি। ফ্রিজের ভিতর রাখা ছিল নগদ ৯৬ লক্ষ টাকা! ফ্রিজের মধ্যে এত টাকা কোথা থেকে এলো, ভেবে হতচকিত হয়ে গিয়েছিলেন তিনি।

তবে তিনি কিন্তু চাইলেই বিষয়টি চেপে যেতে পারতেন। কিন্তু এর থেকে পরবর্তী দিনে আরও বড় কোনো বিপদে জড়িয়ে যাওয়ার আশঙ্কা ছিল। পরে যাতে কোনো আইনগত জটিলতার সম্মুখীন হতে না হয় তার জন্য পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করেন তিনি। তাদের সমস্ত ঘটনা খুলে বলেছেন ওই যুবক। পুলিশ আপাতত ওই টাকা বাজেয়াপ্ত করেছে এবং ওই ফ্রিজের মালিকের সন্ধান করছে।

দক্ষিণ কোরিয়ার নিয়ম অনুসারে, যদি এই টাকার প্রকৃত মালিকের সন্ধান না পাওয়া যায় তাহলে ২২ শতাংশ কেটে নিয়ে বাকি অংশটা পেয়ে যাবেন ওই যুবক। কিন্তু যদি কোনো অপরাধমূলক কাজের সূত্রে এই টাকা এসে থাকে সে ক্ষেত্রে সম্পূর্ণ টাকাটাই বাজেয়াপ্ত হয়ে যাবে। এবং তার সঙ্গে ওই টাকার মালিকের বিরুদ্ধে উপযুক্ত আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।