সম্প্রতি মরণোত্তর চক্ষুদানের অঙ্গীকার করে এক অনন্য নজির গড়লেন ফালাকাটা ব্লকের জটেশ্বরের এক যুবক

4
সম্প্রতি মরণোত্তর চক্ষুদানের অঙ্গীকার করে এক অনন্য নজির গড়লেন ফালাকাটা ব্লকের জটেশ্বরের এক যুবক

“অন্ধজনে দেহো আলো, মৃতজনে দেহো প্রাণ” কবিগুরুর এই ভাবনার স্বার্থক প্রতিফলন ঘটল জটেশ্বরে। মৃত্যুর পরে অন্যের চোখে আলো ফুটিয়ে যেন এই জগৎটাকে দেখা যায়। জগতের যা কিছু সুন্দর তার সব কিছুকে উপভোগ করা যায়। এই লক্ষ্যেই ফালাকাটা ব্লকের জটেশ্বরের সুভাষপল্লীর এক যুবক শুক্রবার মরণোত্তর চক্ষুদানের অঙ্গীকার করলেন।

এদিন গনজাগরণ মঞ্চ (জটেশ্বর ইউনিটের) উদ্যোগে সৌমিক সরকারের বাড়িতে এক বিশেষ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছিল। সেখানেই সৌমিক মরণোত্তর চক্ষুদানের কাগজপত্রে সই করে। এদিন সৌমিক সরকার জানিয়েছেন,”এই ইচ্ছেটা ছিল অনেকদিন আগে থেকেই যে সমাজের জন্য কিছু করে যাওয়া, যা মানুষের কাজে লাগবে।

যার অন্যতম প্রধান উদ্দেশ্যই হল অন্ধজনের চোখে আলো ফুটিয়ে মৃত্যুর পরেও নিজেকে জীবিত রাখা। তার আবেদন প্রত্যেক মানুষের উচিত মরণোত্তর চোখ দান করে যাওয়া তাতে অনেক দৃষ্টিহীন পৃথিবীর আলো দেখতে পাবে।”