করোনা আক্রান্ত স্ত্রীকে ব্যবহার করে দেনাদারের থেকে বকেয়া পাওনা আদায় করলেন এক ব্যক্তি

25
করোনা আক্রান্ত স্ত্রীকে ব্যবহার করে দেনাদারের থেকে বকেয়া পাওনা আদায় করলেন এক ব্যক্তি

পাওনা আদায়ের জন্য নিজের । করোনা পজিটিভ স্ত্রীকে নিয়ে ঠায় দেড় ঘন্টা দেনাদারের বাড়িতে বসে রইলেন তিনি। অবশেষে দেনাদারের থেকে ১০ হাজার টাকা বুঝে নিয়ে তবে বাড়ি ফিরে আসেন তিনি!

এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে এলাকায় তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়েছে। স্থানীয় বাসিন্দারা কিন্তু ইতিমধ্যেই ওই পাওনাদারের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ জানিয়েছেন। করোনাকালে এমন কৌশল মোটেই সমর্থন করছেন না তারা। ঘটনাটি ঘটেছে বৈদ্যবাটির শুভতলা এলাকায়।

বিশিষ্ট সূত্রের খবর বৈদ্যবাটি কাজীপাড়ার বাসিন্দা গঙ্গারাম সরকার ইটের ব্যবসা করেন। তিনি কিছুদিন আগে ইটভাটার মালিক শেষনাথ সিংকে পাঁচ লক্ষ টাকা ধার দেন। তবে নির্দিষ্ট সময় পেরিয়ে যাওয়ার পরেও শেষনাথ আর গঙ্গারামকে তার টাকা ফিরিয়ে দিচ্ছিলেন না। বারবার বলছিলেন করোনার জন্য তার ব্যবসা বন্ধ রয়েছে। অতএব তিনি এখন টাকা দিতে পারবেন না।

এহেন পরিস্থিতিতে শেষনাথের থেকে বারংবার টাকা চেয়েও পাননি গঙ্গারাম। শেষমেষ তিনি তার করোনা আক্রান্ত স্ত্রীর করোনা টেস্ট পজিটিভ রিপোর্ট হোয়াটসঅ্যাপ মারফত শেষনাথের কাছে পাঠিয়ে দেন। তাতেও কাজ না হওয়ায় গঙ্গারাম তার কোভিড আক্রান্ত স্ত্রীকে নিয়েই শেষনাথের বাড়িতে হাজির হোন। এদিকে এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে এলাকাবাসী মনে তীব্র আতঙ্ক দানা বেঁধেছে। যে কারণে গঙ্গারামের বিরুদ্ধে শ্রীরামপুর মহকুমাশাসক ও শ্রীরামপুর থানায় মৌখিক অভিযোগ জানানো হয়েছে।