সম্প্রতি মাটি খনন করতে গিয়ে গুপ্ত ধনের সন্ধান পেল একদল তরুণ-তরুণী, প্রায় ৪২৫ টি সোনার মুদ্রা

37
সম্প্রতি মাটি খনন করতে গিয়ে গুপ্ত ধনের সন্ধান পেল একদল তরুণ-তরুণী, প্রায় ৪২৫ টি সোনার মুদ্রা

গুপ্তধনের সন্ধানে নেমে অমূল্য সম্পদ উদ্ধার করলেন ইজরায়েলের একদল তরুণ-তরুণী। মাটির তলা থেকে উদ্ধার হল ৪২৫ টি ২৪ ক্যারেট সোনার মুদ্রা। মুদ্রাগুলি প্রায় ১১০০ বছরের পুরনো। এই স্বর্ণমুদ্রা গুলির আসল মালিক কে তা অবশ্য এখনও জানা যায়নি। তবে স্বর্ণমুদ্রা গুলি ইজরায়েলের বাইজেন্টাইন সাম্রাজ্যের আমলের মুদ্রা বলে জানা গেছে।

গত ১৮ই আগস্ট ইজরায়েলের একটি নির্মীয়মান বাড়ির মাটিতে খননকার্য চালাচ্ছিলেন একদল যুবক যুবতী। তারাই আবিষ্কার করলেন এই অমূল্য রতন। খনন কাজের সাথে জড়িত থাকা ওজ কোহেন নামক এক সদস্য জানালেন, মাটি খুঁড়তে খুঁড়তে হঠাৎই পাতলা পাতার মতো একটি বস্তু নজরে আসে তার। হাতে নিয়ে ভালো করে পরীক্ষা করতেই দেখেন সেটি সোনার মুদ্রা।

এই খননকার্য চলছিল ইজরায়েলের বাসিন্দা লিয়াত নাভাদ-জিভের নেতৃত্বে। গুপ্তধন উদ্ধার প্রসঙ্গে তিনি জানালেন, আনুমানিক ১১০০ বছর আগে কেউ এই মুদ্রা গুলিকে এমন ভাবে মাটিতে পুঁতে দিয়েছিলেন, যাতে পরবর্তী ক্ষেত্রে সহজেই তা খুঁজে পাওয়া যায়। স্বর্ণ মুদ্রা ভর্তি কলস যাতে কোনোভাবে সরে না যায়, সে বিষয়ে নিশ্চিত হয়েই মাটিতে গচ্ছিত রেখেছিলেন তার সম্পদ।

লিয়াতের কথায়, স্বর্ণ মুদ্রার প্রকৃত মালিক কেন যে পরে মুদ্রা গুলিকে উদ্ধার করেন নি তা স্পষ্ট নয়। ইসলামী যুগে বসবাসকারী আব্বাসীদের আমলের স্বর্ণমুদ্রা এগুলি। প্রতিটি মুদ্রার গায়ে সুন্দর নকশা করা আছে। একে স্বর্ণমুদ্রা, তার উপর এর ঐতিহাসিক গুরুত্ব এক অসীম! কাজেই, বহুমূল্য এবং দুষ্প্রাপ্য গুপ্তধন উদ্ধার হওয়াকে কেন্দ্র করে স্বভাবতই এলাকায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে।