ভাবী সন্তানের লিঙ্গ পরিচয় জানাতে গিয়ে এলাকাবাসীর রাতের ঘুম ওড়ালেন এক দম্পতি!

21
ভাবী সন্তানের লিঙ্গ পরিচয় জানাতে গিয়ে এলাকাবাসীর রাতের ঘুম ওড়ালেন এক দম্পতি!

পার্টি দিয়ে রীতিমত অভিনব পদ্ধতিতে ভাবী সন্তানের লিঙ্গ পরিচয় জানানোর চল পাশ্চাত্য দুনিয়ার ট্রেন্ডে ভীষণভাবে ইন। এটিও যেন রীতিমতো এক উৎসব যেখানে জন্মের আগেই ভাবি সন্তানের লিঙ্গ পরিচয় পরিবার-পরিজন এবং আত্মীয়-স্বজনদের জানিয়ে দেওয়া হয়। পাশ্চাত্য সংস্কৃতিতে জন্মের আগেই শিশুর লিঙ্গ নির্ধারণ বেআইনি নয়। বরং রীতিমতো উৎসব করেই শিশুর লিঙ্গ প্রকাশ করা হয়।

তবে তেমনটা করতে গিয়ে এলাকাবাসীর রাতের ঘুম ওড়ালেন এক দম্পতি! সারা শহর কাঁপিয়ে ভাবি সন্তানের আগমনের খুশি উদযাপন করলেন ইংল্যান্ডের নিউ হ্যাম্পশায়ারের ওই দম্পতি। প্রায় ৩৬ কেজি ওজনের আতশবাজি একসঙ্গে ফাটিয়ে শহরে রীতিমতো ভূমিকম্পের পরিস্থিতি তৈরি করেছিলেন তারা। ৩৬ কেজি আতশবাজি একসঙ্গে ফেটে যাওয়ায় তীব্র শব্দ এবং জোর আঘাতে কেঁপে উঠল সম্পূর্ণ হ্যাম্পশায়ার শহরটি।

বিস্ফোরণের মত আওয়াজে কানে তালা লেগে যাওয়ার জোগাড় হয়েছিল শহরবাসীর। তীব্র বিস্ফোরণে বাড়ি ঘর যেন কেঁপে উঠেছিল। পায়ের তলার মাটি যেন দুলছিল। শহরের বাসিন্দাদের মধ্যে একজন জানাচ্ছেন, এই বিস্ফোরণ এতটাই তীব্র ছিল যে তাদের বাড়ির দেওয়াল থেকে ছবি খসে মাটিতে পড়েছিল! এমন শব্দে সকলেই আতঙ্কিত হয়ে পড়েছিলেন। ফলে স্বভাবতই পুলিশ পৌঁছে যায় ঘটনাস্থলে।

প্রসঙ্গত তীব্র বিস্ফোরণের পরেও অবশ্য ওই দম্পতি সুস্থ রয়েছেন। তবে তাদের কারা এমন বিপুল পরিমাণে আতশবাজি সরবরাহ করেছিল তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ। ঘটনার তদন্ত চলছে।