বিশ্বের সবথেকে পরিষ্কার এবং পরিচ্ছন্ন অন্তর্বাস তৈরি করল মিনেসোটার একটি সংস্থা

6
বিশ্বের সবথেকে পরিষ্কার এবং পরিচ্ছন্ন অন্তর্বাস তৈরি করল মিনেসোটার একটি সংস্থা

অনেকেই থাকেন যারা একই অন্তর্বাস কয়েকদিন ধরে একটানা পরিধান করেন। স্বাভাবিক ভাবেই আমরা এগুলো কে পছন্দ করিনা। এটি একেবারেই অস্বাস্থ্যকর বলে মনে করি আমরা। একটানা না পরিষ্কার করে অন্তর্বাস ব্যবহার করলে সেটি শরীরের পক্ষে হানিকারক হতে পারে। তবে সম্প্রতি এমন কথা শোনা যাচ্ছে যে, একখানা যদি বেশ কয়েকদিন না পরিষ্কার করে অন্তর্বাস পড়েন, তাহলে নাকি কোন অসুবিধা হবে না। এমনকি আপনাকে কষ্ট করে পরিষ্কার করতে হবে না সেগুলি। হতবাক হয়ে যাবার মত কথা হলেও এটি একেবারে সত্যি। এমনই একটি অন্তর্বাস সম্পত্তি বিক্রি করছে আমেরিকার মিনেসোটার একটি সংস্থা।

ওই সংস্থার দাবি অনুযায়ী, তাদের তৈরি কিরবি অন্তর্বাস বিশ্বের সবথেকে পরিষ্কার এবং পরিচ্ছন্ন। প্রায় একমাস যদি সেটি পরিষ্কার না করা যায় তাহলেও কোন সমস্যা হবে না। এই অন্তর্বাসটি নিজে নিজেই পরিষ্কার হয়ে যায়। জানা গিয়েছে যে, বাস ইউক্যালিপটাস এবং তামার সাহায্যে তৈরি করা হয়েছে এই কাপড়। এটি নিজে থেকেই পরিষ্কার করা যায়।

সংস্থা থেকে আরও জানানো হয়েছে যে, এই অন্তর্বাস নিজে থেকে সমস্ত ব্যাকটেরিয়া কে ধ্বংস করে দেয়। প্রত্যেকদিন এর ব্যবহারের পর শুধু বাইরের দিকে একটু মেলে রাখতে হবে। তাহলে আরো একবার ব্যবহার যোগ্য হয়ে যাবে এই অন্তর্বাস। বহু দিন একটানা ব্যবহার করলেও কোনো দুর্গন্ধ ছাড়াবে না এটি দিয়ে।

এর আগেও এই ধরনের একাধিক প্রোডাক্ট এই সংস্থা বাজারে এনেছিল। আগের মতো এটিও যে সমানভাবে বাজারে জনপ্রিয় হবে, তা স্পষ্ট হয়ে যায়। আমিও মোজা থেকে শুরু করে চাদর, সবকিছুই পরিষ্কার করেছে এই সংস্থাটি। তবে এরকম একটি জিনিসের কথা কিভাবে মাথায় এলো তা নিয়ে অনেকেই জিজ্ঞাসাবাদ করেছে। তার সঠিক উত্তর পাওয়া গেছে সংস্থার ওয়েবসাইটে।

ওয়েবসাইটের মতামত অনুযায়ী, একবার ঘুরতে গিয়ে পোশাক কম থাকার কারণে অনেকে বিপাকে পড়তে হয়েছে। বাড়ি ফিরেই এই নিয়ে অনেক চিন্তা ভাবনা করতে শুরু করে দেয়। বাইরে পরিষ্কার না করার অভাবে একই রকম জামা কাপড় পরতে হয় তাদের। পরিষ্কার না করার ফলে পোশাক দিয়ে দুর্গন্ধ ছড়ায়। তাই এইরকম একটি পোশাক তৈরি করার কথা সংস্থার মাথায় আসে। প্রথম পদক্ষেপে সফল হয়ে গিয়েছিলেন তারা। তারপরে সকলের কাছে গ্রহণযোগ্য হয়েছে তাদের তৈরি পোশাক আশাক।