রাম মন্দির নির্মাণের জন্য প্রায় এক কোটি টাকা দান করলেন এক গুহাবাসী সন্ন্যাসী

9
রাম মন্দির নির্মাণের জন্য প্রায় এক কোটি টাকা দান করলেন এক গুহাবাসী সন্ন্যাসী

অদ্ভুত এই দেশটি আমাদের, যেখানে নানা জাতির বাসস্থান। সকলেই মিলেমিশে একাকার। বিচিত্র দেশের বিচিত্র সব মানুষেরা, নানান কাজ কর্মের মধ্যে পড়ে যায় সকলের নজরে। অযোধ্যায় রাম মন্দির হওয়ার পরিকল্পনা চলছে এবং সেখানে নানা জাতির নানা মানুষেরা বাড়িয়ে দিয়েছে সাহায্যের হাত। এই রকমই একটি মানুষ যিনি থাকেন একটি গুহায়, তিনি একজন সন্ন্যাসী বয়স প্রায় ৮৩ বছর, সে এই রাম মন্দির তৈরীর জন্য টাকা দিলেন প্রায় এক কোটি টাকা। ভাবলেই কেমন লাগে।

একটি গুহায় থাকা সন্ন্যাসী সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিল তাও এক কোটি টাকা দিয়ে। এই সন্ন্যাসীটির নাম হল স্বামী শংকর দাস। তার এই বিরাট অংকের অনুদানের জন্য যখন সাংবাদিকরা তার সাক্ষাৎকার নেয় তখন তিনি জানান যে, তিনি নাকি ৫০ বছর ধরে ওই গুহাতে রয়েছেন এবং যারা ঐ গুহা দেখতে আসে, সেই ভক্তদের কাছ থেকেই তিনি যে টাকা পান সেই টাকাতেই তিনি তার জীবনটাকে কাটিয়ে দিচ্ছেন।

ওই গুহাটি হলো ঋষিকেশের গুহা। তিনি জানান যে, যখন তিনি জানতে পারেন যে বিশ্ব হিন্দু পরিষদ অযোধ্যা মন্দির তৈরি জন্য একটি প্রচার করেন, সেটা যখন তিনি শুনতে পান তখনই তিনি ঠিক করে নিয়েছিলেন যে এতদিন ধরে যে মন্দিরটি তৈরীর স্বপ্ন সকলে দেখছে সেখানে তিনিও চাঁদা দেবেন।

শংকর দাসের ব্যাংক একাউন্টে এত টাকা রয়েছে সেটা দেখে ব্যাংকের সকলেই ভীষণ চমকে গিয়েছিল। একজন আরএসএস কর্মীর কে সঙ্গে নিয়ে ব্যাংকের সাথে যোগাযোগ করেন। উত্তরাখণ্ডের রাম মন্দিরের জন্য যে টাকা সংগ্রহ করবে তার দায়িত্ব ছিল রনদীপ পোখরিয়া।

তিনি বলেন যে, অনুদান পাওয়া থেকে তাদের কাছে অনেক বড় ব্যাপার হল শংকর দাসের মত একজন রাম ভক্ত এতটা বড় কাজ করলো। এর আগেও একটি দশ বছরের ছোট মেয়ে তার পিগি ব্যাংক ঋণের প্রায় ২৫০০ টাকা দিয়েছিলেন রাম মন্দির তৈরির জন্য।