মানুষের উপর রাগ করে জীবন্ত পথ কুকুরের গায়ে আগুন ধরিয়ে দিল বছর ২৬ এর এক ব্যাক্তি

4
মানুষের উপর রাগ করে জীবন্ত পথ কুকুরের গায়ে আগুন ধরিয়ে দিল বছর ২৬ এর এক ব্যাক্তি

ভয়ঙ্কর নৃশংসতার সাক্ষী থাকলো থানের ওয়াঘবিলের কিংকংনগর। মানুষের উপর রাগ করে জীবন্ত পথ কুকুরের গায়ে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হলো। অপরাধীর নাম ধীরাজ রেড্ডি। বয়স মাত্র ২৬ বছর। এমন ঘটনায় হতবাক এলাকার বাসিন্দারা। সামান্য একটু কথা কাটাকাটি থেকেই যে ঘটনা এমন গুরুতর পর্যায়ে পৌঁছে যাবে, তা আশা করেননি কেউ। বিশেষত অসহায় একটি পথ কুকুরকে এমন নৃশংস ভাবে খুন করার ঘটনা মেনে নিতে পারছেন না কেউই।

ঠিক কী ঘটেছিল? স্থানীয়রা জানাচ্ছেন, ঘটনার দিন রাতে ধীরাজের সঙ্গে কুকুরটির কেয়ারটেকার ললিত মল্লিকের কথা কাটাকাটি হয়। রাস্তার একপাশে ধীরাজের বাইক দাঁড় করানো ছিল। ললিত বাড়ি ফেরার সময় ধীরাজের বাইকে লাগানো পতাকায় ভুলবশত হাত দিয়ে ফেলে। এর পেছনে তার কোনো খারাপ উদ্দেশ্য ছিল না। কিন্তু, বাইকের পতাকায় হাত রাখাই ধীরাজ খুব রেগে যায়।

অশান্তি এমন পর্যায়ে পৌঁছে যায় যে ধীরাজ ললিতকে এক থাপ্পড় মেরে বসে। কিন্তু তার পরেও তার রাগ কমেনি। সেদিন মাঝরাতে ধীরাজ ললিতের বাড়িতে উপস্থিত হয়ে অশান্তি করতে শুরু করে। সেই সময় ললিতের বাড়ির বাইরে উপস্থিত পথ কুকুরটি রীতিমতো উচ্চস্বরে চীৎকার করতে শুরু করে। এইসময় ধীরাজের সমস্ত রাগ গিয়ে পড়ে কুকুরটির উপর।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, ধীরাজ কুকুরটিকে বেধড়ক মারতে শুরু করে। কুকুরটি আধমরা হয়ে গেলে তারপর জীবন্ত অবস্থাতেই তার গায়ে আগুন ধরিয়ে দেয়। স্থানীয়রা ছুটে এসে পুকুর থেকে বাঁচাবার চেষ্টা করলেও ধীরাজ ছুরি নিয়ে তাদের হুমকি দিতে আরম্ভ করে। তবে অপরাধী ছাড় পায়নি। ধীরাজের বিরুদ্ধে পুলিশের কাছে পশু নির্যাতনের মামলা দায়ের করা হয়। সেই মামলায় অপরাধী এখন পুলিশি হেফাজতে রয়েছে।