কীটনাশক খেয়ে আত্মহত্যা করল এক দ্বাদশ শ্রেণীর ছাত্রী

12
কীটনাশক খেয়ে আত্মহত্যা করল এক দ্বাদশ শ্রেণীর ছাত্রী

মালদা-বাড়িতে থাকা কীটনাশক খেয়ে আত্মহত্যা করল এক দ্বাদশ শ্রেণীর ছাত্রী। ঘটনাটি ঘটেছে মালদা জেলার হবিবপুর থানার নিমবাড়ি এলাকায়।মৃত ছাত্রীর নাম কল্পনা বর্মন বয়স (১৯)বছর।সে স্থানীয় মানিকড়া হাই স্কুলের দ্বাদশ শ্রেণীর ছাত্রী।পরিবারে রয়েছে বাবা মন্টু বর্মন মা জোৎস্না বর্মন।

স্থানীয় ও পরিবার সূত্রে জানা যায় প্রত্যেক দিনের মতো আজ সকালে পরিবারের সদস্যরা ঘুম থেকে উঠে অন্যান্য দিনের মতো কাজ করছিলো। সেই সময় হঠাৎই ওই স্কুল ছাত্রীর ঘরের ভেতর থেকে একটা শব্দ শোনা যাচ্ছে। সেই শব্দ শোনা মাত্রই ছাত্রীর বাবা ও মা তড়িঘরি ছুটে যায়। ঘরের ভেতরে গিয়ে দেখতে পাই ওই স্কুল ছাত্রী কীটনাশক খেয়ে নিয়েছে। তড়িঘড়ি তাকে উদ্ধার করে স্থানীয় বুলবুলচন্ডী আর এন রায় গ্রামীণ হাসপাতালে নিয়ে যায় চিকিৎসার জন্য। সেখান থেকে অবস্থার অবনতি হলে মালদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আনা হয় ওই স্কুলছাত্রীকে। জরুরি বিভাগে কর্মরত চিকিৎসকেরা ওই স্কুলছাত্রীকে মৃত বলে ঘোষণা করে। মৃতদেহ টি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মালদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মর্গে পাঠানো হয়।

এই বিষয়ে মৃত স্কুল ছাত্রীর বাবা মন্টু বর্মন জানান আজ সকালে তার মেয়ে বাড়িতে থাকা কীটনাশ খেয়ে নেয়। তবে কি কারণে সে কীটনাশক এই আত্মহত্যা করল বুঝে উঠতে পারছি না। এই ঘটনায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে মৃত ছাত্রীর পরিবার সহ গোটা গ্রামে।