ধোনির রাঁচির ফার্মহাউসে পৌঁছে গেল ২০০০টি কড়কনাথ মুরগী

7
ধোনির রাঁচির ফার্মহাউসে পৌঁছে গেল ২০০০টি কড়কনাথ মুরগী

মহেন্দ্র সিং ধোনির রাঁচির ফার্মহাউসে অবশেষে পৌঁছে গেল ২০০০টি কড়কনাথ মুরগী। সম্প্রতি হাজার দুয়েক কড়কনাথ মুরগী অর্ডার করেছিলেন মহেন্দ্র সিং ধোনি। কিন্তু বার্ড ফ্লুয়ের কারণে তা পেতে সমস্যা হয়েছিল। বছর দুয়েক আগে শোনা গিয়েছিল পোলট্রি ব্যবসায় নাকি হাত পাকাতে চলেছেন ধোনি ।

কুচকুচে কালো রঙের এই বিশেষ প্রজাতির মুরগি সচরাচর দেশে পাওয়া না। এতে অন্যান্য মুরগির তুলনায় প্রোটিন অনেকটাই বেশি। নেই ফ্যাট আর কোলেস্টেরলও। তাই স্বাস্থ্যের পক্ষে অত্যন্ত উপকারী। আবার স্বাদেও অন্য চিকেনকে হার মানায় কড়কনাথ। আর এই মুরগি নিয়েই পোলট্রি ফার্ম খুলবেন ধোনি বলে শোনা গিয়েছিল। কিন্তু করোনার জন্য তাঁর সেই পরিকল্পনা পিছিয়ে যান।

তবে এবার মনে হচ্ছে, পুরোদমেই শুরু হয়েছে প্রাক্তন ভারত অধিনায়কের ব্যবসা। মধ্যপ্রদেশের সবচেয়ে ভাল মানের কড়কনাথ পাওয়া যায়। ২০১৮ সালে ছত্তিশগড়কে হারিয়ে জিই ট্যাগ পেয়েছিল সে রাজ্যের কড়কনাথ মুরগী। আর সেরা মুরগীই আমজনতার কাছে পৌঁছে দিতে চান ধোনি। সেই কারণে সেখান থেকেই দেওয়া হয়েছিল অর্ডার।

গত শুক্রবার তা পৌঁছে গিয়েছে ধোনির ফার্মে। ঝাবুয়ার কালেক্টর সোমেশ মিশ্র ধোনির ফার্মহাউসে কড়কনাথ পাঠিয়ে দেওয়ার পর বলেন, ধোনির মতো তারকা কড়কনাথের ব্যবসার যেভাবে উৎসাহ দেখিয়েছেন, তা সত্যিই প্রশংসনীয়। আগামিদিনে এই ব্যবসা আরও জনপ্রিয় হয়ে উঠবে।

কড়কনাথ পোলট্রি উৎপাদন সংস্থার সঙ্গে যুক্ত বিনোদ মেদা জানান, অনলাইনেও কড়কনাথ মুরগী অর্ডার করা যায়। একেবারে মধ্যপ্রদেশ থেকে তা পৌঁছে যাবে। সম্প্রতি বার্ড ফ্লুর কারণে কড়কনাথের সরবরাহ বন্ধ থাকলেও বর্তমানে পরিস্থিতি একদম স্বাভাবিক। প্রসঙ্গত, একদিনের কড়কনাথের মূল্য ৭৫ টাকা। আবার ১৫ ও ২৮ দিনের কড়কনাথ মুরগীর দাম যথাক্রমে ৯০ ও ১২০ টাকা।