শুধু মাত্র দূষণের জেরে ভারতে ১.১৬ লক্ষ সদ্যোজাত শিশুর মৃত্যু, সমীক্ষা স্টেট অফ গ্লোবাল এয়ার ২০২০

6
শুধু মাত্র দূষণের জেরে ভারতে ১.১৬ লক্ষ সদ্যোজাত শিশুর মৃত্যু, সমীক্ষা স্টেট অফ গ্লোবাল এয়ার ২০২০

ভারতে শিশু মৃত্যুর হার বাড়ছে বৈ কমছে না। বিশেষজ্ঞদের মতে, এদেশে শিশু মৃত্যুর অনেক কারণ আছে। তারমধ্যে সঠিক পুষ্টির অভাব, কম ওজন, আর্থিক অস্বচ্ছলতা যেমন কারণ তেমনই শিশুর মৃত্যুর অপর একটি কারণ হিসেবে বায়ুদূষণকে দায়ী করছেন স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা। স্টেট অফ গ্লোবাল এয়ার ২০২০ এর সমীক্ষার রিপোর্ট অনুযায়ী, বায়ু দূষণের জেরে ভারতে এ পর্যন্ত প্রায় এক লক্ষ ষোলো হাজার সদ্যোজাত শিশুর মৃত্যু হয়েছে।

সমীক্ষার এই চাঞ্চল্যকর রিপোর্ট পেশ হতেই উদ্বেগ প্রকাশ করছেন স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা। সমীক্ষার রিপোর্ট অনুযায়ী, জন্মের এক মাসের মধ্যেই এই সকল শিশুর মৃত্যু হয়েছে। এদের মধ্যে অর্ধেকের মৃত্যু হয়েছে বাড়ির বাইরের দূষিত বাতাসের সংস্পর্শে এসে। বাকিরা বাড়ির মধ্যেই কাঠ, কয়লা, ঘুটে জ্বালানোর ফলে সৃষ্ট ধোঁয়ার সংস্পর্শে এসে মারা গেছে। উল্লেখ্য, গতবছর দূষিত বায়ুর সংস্পর্শে এসে ভারতে প্রায় ১৬.৭ লক্ষ মানুষের মৃত্যু হয়েছে।

ভারতের স্বাস্থ্য রিপোর্ট বলছে, বায়ু দূষণের কারণে বিগত কয়েক বছরে ভারতবাসীর মধ্যে স্ট্রোক, হার্ট অ্যাটাক, ফুসফুসের ক্যান্সার, ফুসফুসের অন্যান্য রোগ এবং ডায়াবেটিসের মাত্রা বেড়েছে। তবে শিশু মৃত্যুর জন্য বায়ু দূষণের পাশাপাশি কম ওজন এবং সময়ের আগে প্রসবকেও দায়ী করছেন বিশেষজ্ঞরা। আমেরিকার পরিবেশ সুরক্ষা এজেন্সির সঙ্গে যৌথ উদ্যোগে হেলথ এফেক্টস ইনস্টিটিউটের তরফ থেকে এই সমীক্ষা চালানো হয়। গত বুধবার সমীক্ষার রিপোর্ট পেশ করা হয়েছে।

ভারতের স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ ডক্টর কল্পনা বালাকৃষ্ণান জানিয়েছেন, বায়ু দূষণের ফলে প্রসূতি এবং সদ্যোজাত শিশুর শরীরের উপর ব্যাপক কু-প্রভাব পড়ে। সদ্যোজাত শিশুর কম ওজন, পুষ্টির অভাব, সময়ের আগে প্রসাবের পাশাপাশি তিনি শিশুর পরিবারের আর্থিক অস্বচ্ছলতাকেও শিশু মৃত্যুর অন্যতম কারণ বলে মনে করেছেন। সবথেকে উদ্বেগজনক হলো দক্ষিণ এবং পূর্ব এশিয়ার দেশগুলোতে ব্যাপক বায়ু দূষণের ফলে আসন্ন শীতে করোনা প্রকোপের মাত্রা বাড়বে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।